মানিকগঞ্জ জেলার নামকরণ ও ঐতিহ্য

মেঘনা, ব্রহ্মপুত্র, ধলেশ্বরী, শীতলক্ষ্যা, ইছামতি, বুড়িগঙ্গা ও মৃতপ্রায় পুরাতন ব্রহ্মপুত্র বিধৌত মানিকগঞ্জ জেলার নামকরণ নিয়ে একাধিক প্রবাদ ও কিংবদন্তি প্রচলিত রয়েছে। শহরটি প্রাচীন হলেও নামটি  প্রাচীন নয়।  ১৮৪৫ খ্রিস্টাব্দ হতে মানিকগঞ্জ নামের পরিচয়। এরপূর্বে কোনো ইতিহাস, মানচিত্র, নথিপত্র, পুঁথি কিংবা অন্য কোনো দলিল-দস্তাবেজে মানিকগঞ্জ নামের অস্তিত্ব পাওয়া যায় না। সংগতকারণে এটি ১৮৪৫ খ্রিস্টাব্দের কাছাকাছি কোনো সময়ে নামকরণ হয়েছে বলে মনে করা হয়। যেহেতু তখন ইংরেজ আমল এবং মুসলমানদের চেয়ে হিন্দুরা প্রভাবশালী ছিল সেহেতু নামটির সাথে মুসলমানের চেয়ে হিন্দু প্রভাব জড়িত থাকার সম্ভবনা বেশি।

জানা যায়, নবাব সিরাজউদৌল্লার ঘনিষ্ট সহচর মানিক চাঁদ-এর নামানুসারে এলাকার নাম হয় মানিকগঞ্জ। নবাবের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করায় তিনি ইস্ট ইণ্ডিয়া কোম্পানির খুব প্রিয়পাত্র ছিলেন। তিনি দীর্ঘ ত্রিশ বছর

ইংরেজদের নিকট নবাব দরবারের গোপন তথ্য সরবরাহ করেছিলেন। পলাশীর যুদ্ধে নবাবের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করায় ইতিহাসে তিনি ঘৃন্য হয়ে আছেন। তবে ইংরেজদের কাছে ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধেয় ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি। যখন এ নামকরণ করা হচ্ছিল তখন মানিক চাঁদ জীবিত ছিলেন না। ১৮৪৫ খ্রিস্টাব্দের মে মাসে মহকুমা বিভক্ত করে নতুন প্রশাসনিক বিভাগ করার সময় ইংরেজ অফিসারগণ কৃতজ্ঞতার নিদর্শনস্বরূপ মানিক চাঁদের নামানুসারে নতুন মহকুমার নাম দেন মানিকগঞ্জ।

মানিকগঞ্জ নামকরণ সম্পর্কে দরবেশ নিয়েও একটি প্রবাদ রয়েছে। যদিও এ প্রবাদটি কাল এবং ঘটনাপ্রবাহ বিবেচনায় যথার্থ হবার সম্ভবনা ক্ষীণ। তবু পাঠকদের কৌতুহল মেটানোর জন্য উল্লেখ করা হলো। ঢাকার ধামরাইয়ে অবস্থিত একজন দরবেশের নির্দেশে আঠার শতকের প্রথমার্ধে মানিক শাহ্ নামক এক দরবেশ সিঙ্গাইর উপজেলায় আগমনপূর্বক একটি খানকাহ্ প্রতিষ্ঠা করে ইসলাম ধর্ম প্রচার শুরু করেন। কিছুদিন পর তিনি খানকাহ্ ছেড়ে হরিরামপুর উপজেলার দরবেশ হায়দার শেখের মাজারে গমন করেন। সেখানে গিয়ে ইছামতি নদীর তীরে অবস্থিত জনশূন্য একটি চরাভূমিতে খানকাহ্ প্রতিষ্ঠা করেন। খানকাহকে কেন্দ্র করে একটি ছোট লোকালয় গড়ে ওঠে। দরবেশ মানিক শাহের নামানুসারে লোকালয়টির নাম ‘মানিকনগর’। এ মানিকনগর হতে এলাকার নাম হয় মানিকগঞ্জ। মানিক শাহর খানকাহ্ ও সংলগ্ন কোনো মোকাম এখন আর নেই। মনে করা হয় এগুলো নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। কেউ কেউ মনে করেন, দুর্ধর্ষ পাঠান সর্দার মানিক ঢালীর নামানুসারে এলাকাটির নাম হয় মানিকগঞ্জ। মানিকগঞ্জ জেলা ৭টি উপজেলা নিয়ে গঠিত। উপজেলাগুলো হল- মানিকগঞ্জ সদর, সিঙ্গাইর, শিবালয়, সাটুরিয়া, হরিরামপুর, ঘিওর ও দৌলতপুর।

অতি প্রয়োজনীয় কয়েকটি লিংক: বিসিএস, প্রতিষ্ঠান, প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা, গবেষণা এবং শুদ্ধভাবে মাতৃভাষা শেখার জন্য অতি প্রয়োজনীয় কয়েকটি লিংক:

শুবাচ লিংক

শুবাচ লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

নাটোর জেলার নামকরণ

চকরিয়ার ইতিহাস ও ঐতিহ্য

 

error: Content is protected !!