যতীন্দ্রমোহন বাগচী, পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মূ, কল্পনা চাওলা: প্রথম ভারতীয় নভোচারী

ড. মোহাম্মদ আমীন

যতীন্দ্রমোহন বাগচী, পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মূ, কল্পনা চাওলা: প্রথম ভারতীয় নভোচারী

যতীন্দ্রমোহন বাগচী: যতীন্দ্রমোহন বাগচী (২৭শে নভেম্বর ১৮৭৮ – ১লা ফেব্রুয়ারি ১৯৪৮)  বাঙালি কবি ও সম্পাদক। নিসর্গ-সৌন্দর্যে চিত্ররূপময়তার  পল্লিকবি। ভাগ্যবিড়ম্বিত ও নিপীড়িত নারীদের কথা তিনি বিশেষ দরদের সঙ্গে প্রকাশ করেছেন। ‘কাজলাদিদি’ ও ‘অন্ধবন্ধু’ তাঁর এ ধরনের দুটি বিখ্যাত কবিতা। তাঁর উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ হলো: লেখা (১৯০৬), রেখা (১৯১০), অপরাজিতা (১৯১৫), নাগকেশর (১৯১৭), জাগরণী (১৯২২), নীহারিকা (১৯২৭), মহাভারতী (১৯৩৬) ইত্যাদি। রবীন্দ্রনাথ ও যুগসাহিত্য তাঁর একটি বিশেষ গদ্যগ্রন্থ। ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১ ফেব্রুয়ারি তিনি মারা যান।  
 
 
পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মূ: পণ্ডিত রঘুনাথ মুর্মূ একজন অসাধারণ প্রতিভাধর ভাষাতত্ত্ববিদ, লেখক, নাট্যকার ও সাঁওতালি ভাষায় ব্যবহৃত “অলচিকি” লিপির উদ্ভাবক।  মুর্মূ ১৯০৫ খ্রিষ্টাব্দের ৫ই মে ওড়িশার ময়ূরভঞ্জ জেলার রায়রঙ্গপুর থানার ডহরাডিহি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন এবং ১৯৮১ খ্রিষ্টাব্দের ১লা ফেব্রুয়ারি মারা যান। আজ তাঁর প্রয়াণদিবস। স্মরণ করছি শ্রদ্ধাচিত্তে পরম কৃতজ্ঞতায়। তিনি ১৯২৫ খ্রিষ্টাব্দে অলচিকি লিপি উদ্ভবন করেন।  এরপর তিনি ওই লিপিতে সাঁওতালি ভাষায় বিভিন্ন নাটক, কবিতা ও বই লেখেন। তিনি ১৯৭৭ খ্রিষ্টাব্দে ঝাড়গ্রামের বেতাকুন্দরিডিহিতে  একটি সাঁওতালি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠা করেন। আদিবাসী সাহিত্যে অবদানের জন্য রাঁচির ধুমকুরিয়া তাঁকে ডি. লিট ডিগ্রি প্রদান করে। আদিবাসী লেখক মার্টিন ওঁরাও তার ‘দি সান্থাল: এ ট্রাইব ইন সার্চ অব দি গ্রেট ট্রাডিশন’ গ্রন্থে মুর্মূকে সাঁওতালদের মহান শিক্ষক হিসেবে উল্লেখ করেন। সেই থেকে তিনি আদিবাসীদের কাছে গুরু গোমকে (অর্থাৎ “মহান শিক্ষক”) নামে খ্যাত। বিদু চাঁদান(নাটক), দাড়ে গে ধন(নাটক), খেরওয়ার বীর(নাটক), সিদো কানহু সান্তাড় হুল(নাটক), হড় সেরেঞ (কাব্য), হিতল(কাব্য), বাহা সেরেঞ (কাব্য), এলখা পতব প্রভৃতি তাঁর উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ।
 
কল্পনা চাওলা: জন্ম ১৯৬২ খ্রিষ্টাব্দের ১৭ই মার্চ ভারতের হরিয়ানা রাজ্যের কারনালে এক হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। কারনাল-এর ঠাকুর বালনিকেতন সিনিয়র সেকেন্ডারি স্কুল  থেকে মাধ্যমিক শিক্ষা সমাপ্ত করে ১৯৮২ খ্রিষ্টাব্দে চণ্ডীগড়ের পাঞ্জাব প্রকৌশল কলেজ থেকে মহাকাশ প্রকৌশলের ওপর স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর তিনি উচ্চশিক্ষার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যান। অতঃপর   ইউনিভার্সিটি অব টেক্সাস অ্যাট আর্লিংটনে ভর্তি হন। সেখান থেকে ১৯৮৪ খ্রিষ্টাব্দে  মহাকাশ প্রকৌশল বিষয়ে স্নাতকোত্তর শিক্ষা সমাপ্ত করেন।  তিনি ১৯৮৬ খ্রিষ্টাব্দে ইউনিভার্সিটি অফ কলোরাডো অ্যাট বউল্ডের থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।  ১৯৮৮ খ্রিষ্টাব্দে আমেরিকার  নাসায় তাঁর কর্মজীবন শুরু।  তাঁর প্রথম মহাকাশ যাত্রা শুরু হয় ১৯৯৭ খ্রিষ্টাব্দের ১৯শে নভেম্বর। তিনিই প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে এই কৃতিত্ব অর্জন করেন। ২০০৩ খ্রিষ্টাব্দের ১লা ফেব্রুয়ারি মহাকাশ থেকে প্রত্যাবর্তনের সময় কলম্বিয়া স্পেস সাটলটি পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের সময় এক দুর্ঘটনার ফলে সাত জন ক্রুসহ বিধ্বস্ত হয় এবং কল্পনা-সহ সবাই মারা যান।
 

শুবাচ প্রতিদিন ভাষা ও সাহিত্যবিষয়ক সাধারণ জ্ঞান এবং অন্যান্য: জানুয়ারি

শুবাচ গ্রুপের লিংক: www.draminbd.com
 
 
error: Content is protected !!