যথা যেমন ইদানীং গুরুচণ্ডালী এবং শরৎ শারদীয়

ড. মোহাম্মদ আমীন

যথা ও যেমন
যথা: আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, সংস্কৃত যথা (যদ্‌+তা) অর্থ— (বিশেষণে) ১. যেমন, যে রকম; ২. উপযুক্ত, নির্দিষ্ট (যথাসময়ে); ৩. উদাহরণস্বরূপ এবং (ক্রিয়াবিশেষণে) অনুসারে ( যথা নির্দেশ)।
 
যেমন: আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, বাংলা যেমন অর্থ— (বিশেষণে) যে রকম, যে প্রকার; ২. যথা, দৃষ্টান্তস্বরূপ; (অব্যয়ে) বিস্ময় প্রকাশে (তুমিও যেমন, জাতটা যেমন) এবং (ক্রিয়াবিশেষণে) যেইমাত্র, যেইমুহূর্ত।
 
আভিধানিক অর্থ বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, যথা ও যেমন কিছু কিছু ক্ষেত্রে সমার্থক।
লেখার সামগ্রী যথা: কলম, কাগজ, কালি।
লেখার সামগ্রী যেমন: কলম, কাগজ, কালি।
 
ইদানীং বনাম ইদানীং কাল
সংস্কৃত ইদানীং (ইদম্+দানীম্) অর্থ: (অব্যয়/ ক্রিয়াবিশেষণে) আজকাল, সম্প্রতি, অধুনা, বর্তমান, এখন, এই সময়, এখনকার। ইদানীং শব্দের মধে কাল/সময় রয়ে গেছে। তাই শব্দটির সঙ্গে পুনরায় কাল যুক্ত করা সমীচীন নয়। যেমন: “ইদানীং খুব গরম পড়ছে।” বাক্যের অর্থ— আজকাল খুব গরম পড়ছে। যদি লেখা হয়, “ইদানীংকাল খুব গরম পড়ছে।” তখন বাক্যটি অর্থ হয়ে যাবে— আজকাল-কাল খুব গরম পড়ছে। যা সমীচীন হবে না।

নিমোনিক: ইদানীং বানানের অর্থ সম্প্রতি। তাই প্রথম বা সম্প্রতি থেকে শুরু করতে হয়। প্রথম হচ্ছে ই। এজন্য ই দিয়ে শুরু করুন। এরপর ন-য়ে ঈ-কার। সোজাকথায়, ই এর পর ঈ। তেমনি, ইদানীন্তন, তদানীন্তন, তদানীং। তিনটি শব্দই তৎসম এবং নী যুক্ত।
 
শরৎ শারদীয়
সংস্কৃত শরৎ (শৃৃ+অদ্) অর্থ (বিশেষ্যে)—  বর্ষার পরবর্তী এবং হেমন্তের পূর্ববর্তী ঋতু।   শরৎ শব্দের বিশেষণ শারদীয়। যেমন: শারদীয় দুর্গোৎসব।  শারদীয় শব্দটি বিশেষ্য হিসেবেও ব্যবহৃত হয়। শারদ উৎসব উপলক্ষ্যে প্রকাশিত গল্প উপন্যাস প্রভৃতির সংকলনকেও শারদীয় বলা হয়। এর অর্থ শরৎকালীন। 
 
 
গুরুচণ্ডালী
একই গদ্য রচনায় সাধু ও চলিত উভয় রীতি অসঙ্গত রূপে মিশ্রিত হলে বা লঘুগুরু শব্দের মিশ্রণে ভাষা শ্রুতিকটু হলে তাকে গুরুচণ্ডালী দোষ বলা হয়। একসময় যারা সাধু ভাষায় কথা বলত তারা নিজেদের গুরু ভাবত।  যারা চলিত ভাষায় কথা বলত তাদের বলত চণ্ডাল। চণ্ডালগণ গুরুদের পঙ্‌ক্তিতে ছিল অপাঙ্‌ক্তেয়। তাই গুরুচণ্ডালী মিশ্রণকে বলা হতো দূষণীয়। সেই থেকে গুরুচণ্ডালী দোষ শব্দটি চলে আসছে।
 

সফলতা বনাম সার্থকতা

সফলতা: বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, বাক্যে বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত সফল (সহ+ফল) অর্থ— বিশেষণে ফলযুক্ত, ফলবান, কৃতকার্য (পরীক্ষায় সফল)। সফল থেকে সফলতা (সফল+তা)। বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত সফলতা অর্থ— কৃতকার্যতা, সার্থকতা, যুক্তিযুক্ততা। যেমন: বৃত্তিটা তার একাগ্র শ্রমের পরম সফলতা।
সার্থকতা: একই অভিধানমতে, বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত সার্থকতা (সার্থক+তা) অর্থ— সফলতা, যুক্তিযুক্ততা, কৃতকার্যতা প্রভৃতি। যেমন: বৃত্তিটা তার একাগ্র শ্রমের পরম সার্থকতা।
কেউ প্রত্যাশিত লক্ষ্য অর্জন করতে পারলে তাকে বলা হয় সফল এবং লক্ষ্য অর্জনটাই হচ্ছে সফলতা। অনুরূপভাবে, কেউ প্রত্যাশিত লক্ষ্য অর্জন করতে পারলে তাকে বলা হয় সার্থক এবং ওই অর্জনটাকে বলা হয় সার্থকতা। সফলতা ও সার্থকতা উভয়ে বিশেষ্য এবং তা-প্রত্যয়ে গঠিত। উভয়ের আভিধানিক অর্থও অভিন্ন। সফল হলে সার্থকতা আসে। সার্থক হলে বলা হয় সফলতা অর্জিত হযেছে।
অতএব, সফলতা ও সার্থকতা সমার্থক।
সূত্র: ড. মোহাম্মদ আমীন। কোথায় কী লিখবেন: বাংলা বানান: প্রয়োগ ও অপপ্রয়োগ, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
https://draminbd.com/যথা-যেমন-ইদানীং-গুরুচণ্ড/
 
সূত্র:
ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
বাংলা ভাষার মজা, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
 
 
error: Content is protected !!