যুগ, মধ্যযুগ ও বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগ

ড. মোহাম্মদ আমীন
মধ্যযুগ ( The Middle Ages): মধ্যযুগ, ইউরোপীয় ইতিহাস এবং  তৎকালীন আর্থ-রাজনীতিক ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সারা বিশ্বে একটি অতি আলোচিত কাল। সাধারণভাবে ৪৭৬ খ্রিষ্টাব্দে রোমান সাম্রাজ্যের পতন থেকে ১৪৯২ খ্রিষ্টাব্দে ক্রিস্টোফার কলম্বাসের নতুন জগৎ আবিষ্কার পর্যন্ত সময়কে মধ্যযুগ বলা হয়। 
বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগ: ১৮০১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে বর্তমান পর্যন্ত বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগ। অনেকে মনে করেন, ১৭৬০ খ্রিষ্টাব্দে ভারতচন্দ্রের মৃত্যুর পর থেকে বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগের সূচনা।  যারা মানে করেন, ১৭৬০ খ্রিষ্টাব্দে বাংলা সাহিত্যের আধুনিক যুগের সূচনা, তারা  আধুনিক যুগকে কয়েকটি সময়ধাপে ভাগ করেছেন। যেমন:
ড. মোহাম্মদ আমীন

(১) ১৭৬০ খ্রিষ্টাব্দ হতে ১৭৯৯ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত আধুনিক যুগের প্রথম পর্ব।

(২) ১৮০০ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৮৫৮ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত আধুনিক যুগের দ্বিতীয় পর্ব।
(৩) ১৮৫৯ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৯০০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত আধুনিক যুগের তৃতীয় পর্ব।
(৪) ১৯০১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ১৯৪৭ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত আধুনিক যুগের চতুর্থ পর্ব।
(৫) ১৯৪৮ খ্রিষ্টাব্দ থেকে ২০০০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত আধুনিক যুগের পঞ্চম পর্ব।
(৬) ২০০১ খ্রিষ্টাব্দ থেকে বর্তমান পর্যন্ত  আধুনিক যুগের ষষ্ঠ পর্ব।
বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগ: বাংলাসাহিত্যের মধ্যযুগ’ আর ‘মধ্যযুগ’ এক নয়। ১২০৪ খ্রিষ্টাব্দে গৌড়ে তুর্কি আক্রমণের সময় থেকে ঊনবিংশ শতকের মধ্যভাগ পর্যন্ত বাংলা সাহিত্যের মধ্যযুগ। সাধারণভাবে ১২০১ খ্রিষ্টাব্দ হতে ১৮০০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত সময়কে বাংলাসাহিত্যের মধ্যযুগ ধরা হয়।
বড়ু চণ্ডীদাসের ‘শ্রীকৃষ্ণকীর্তন’ মধ্যযুগের প্রথম নিদর্শন। চৌদ্দ শতকের শেষার্ধে বা পনেরো শতকের প্রথমার্ধে বড়ু চণ্ডীদাস রাধাকৃষ্ণের প্রেমকাহিনি অবলম্বনে ‘শ্রীকৃষ্ণকীর্তন’ কাব্য রচনা করেন। মধ্যযুগের প্রথম মুসলমান কবি শাহ মুহম্মদ সগীর। তিনি পঞ্চদশ শতকে ‘ইউসুফ-জোলেখা’ প্রণয়োপখ্যান-কাব্য রচনা করেন। শ্রীচৈতন্যদেবের (১৪৮৬ খ্রিষ্টাব্দ -১৫৩৩ খ্রিষ্টাব্দ) আবির্ভাব মধ্যযুগের সমৃদ্ধি বলে পরিচিত। মধ্যযুগে আরাকান রাজসভায় বাংলায় সাহিত্যচর্চা শুরু হয়। মঙ্গলকাব্য, শাক্ত পদাবলী, নাথসাহিত্য, বাউল ও অপরাপর লোকসংগীত, ময়মনসিংহ গীতিকা, পূর্ববঙ্গ-গীতিকা ইত্যাদি মধ্যযুগে সৃষ্ট সাহিত্য। 
বাংলা সাহিত্যের আদিযুগ বা প্রাচীন যুগ: আনুমানিক ৬৫০ খ্রিষ্টাব্দ মতান্তরে ৯৫০ খ্রিষ্টাব্দ হতে ১২০০ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত বিস্তৃত। মধ্যযুগের উন্মেষের পূর্বে বাংলায় সংস্কৃত, প্রাকৃত ও অবহট্‌ঠ ভাষায় সাহিত্য রচনার রীতি প্রচলিত ছিল। ধারণা করা হয়,  এর মাধ্যমে  মাধ্যমেই বাংলা সাহিত্যের আদি অধ্যায়ের সূচনা হয়। প্রকৃতপক্ষে সংস্কৃত, প্রাকৃত ও অবহট্‌ঠ ইত্যাদিই ছিল বাংলা ভাষার আদি রূপ।
ক্রিয়াপদের বানান
ক্রিয়াপদের বানানের শেষে ল ব ছ ত প্রভৃতি বর্ণের যে-কোনো একটি থাকলে সাধারণত  বানানের শেষে  ও-কার হয় না।  তাই লিখবেন না: লাগলো, রইলো, করবো, যাবো, খাবো, পাবো। লিখুন:  লাগলো, রইলো, করবো, যাবো, খাবো, পাবো।
বাকি অংশ ও অন্যান্য বিষয় নিচের সংযোগে: https://draminbd.com/যুগ-মধ্যযুগ-midd…age-ও-বাংলা-সাহি/
error: Content is protected !!