রোজা, রমজান, ওঝা: রোজাদার, রোজা রাখা: আরবি ও ফারসি শব্দের বানান

ড. মোহাম্মদ আমীন
 সংযোগ: https://draminbd.com/রোজা-রমজান-ওঝা-রোজাদার-রো/
 
অভিধানে পৃথক ভুক্তিতে দুটি রোজা দেখা যায়। একটি ফারসি উৎসের বাংলা পারিভাষিক রোজা; আরেকটি  সংস্কৃত উৎসের খাঁটি বাংলা রোজা উভয় রোজার অর্থ  ও ব্যুৎপত্তি নিচে দেওয়া হলো—
 
ফারসি উৎসের বাংলা পারিভাষিক রোজা:  বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, ফারসি উৎসের বাংলা পারিভাষিক রোজা শব্দের আভিধানিক অর্থ— (বিশেষ্যে) ইসলামধর্মীয় বিধি অনুসারে (প্রধানত হিজরি পঞ্জিকার রমজান মাসে) সূর্যোদয়ের সামান্য পূর্ব থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার বর্জন ও কামপ্রবৃত্তিদমনস্বরূপ কৃচ্ছ্রসাধনব্রত। যিনি রোজা রাখেন তিনি রোজাদার। এটিও ফারসি উৎসের বাংলা শব্দ। বাংলায় ব্যবহৃত এ রোজা শব্দের উৎস ফারসি হলেও বাংলায় এটি পারিভাষিক শব্দ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। 
 
প্রয়োগ: রমজানের ওই রোজার শেষে  (নজরুল)।
 
খাঁটি বাংলা রোজা: বাংলায় আর একটি রোজা আছে। সেটি সংস্কৃত উপাধ্যায় থেকে উদ্ভূত খাঁটি বাংলা রোজা। এর অর্থ— কল্পিত সর্পবিষচিকিৎসক; যে ব্যক্তি মন্ত্রতন্ত্র দ্বারা কল্পিত ভূত তাড়ানোর চিকিৎসা করে; ওঝা। প্রয়োগ: রোজা এল ভূত তাড়াতে।
 
 
রোজা রাখা:রোজা রাখা অর্থ ইসলামধর্মীয় বিধি অনুসারে (প্রধানত হিজরি পঞ্জিকার রমজান মাসে) সূর্যোদয়ের সামান্য পূর্ব থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পানাহার বর্জন ও কামপ্রবৃত্তি দমনরূপ কৃচ্ছ্রতাসাধনব্রত পালন করা।
প্রয়োগ: রোজারাখা ফরজ।
 
রমজান: আরবি রমজান অর্থ (বিশেষ্যে) হিজরি বর্ষপঞ্জির নবম মাস; যে মাসব্যাপী ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের কৃচ্ছসাধন এবং সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত নিরম্বু উপবাসব্রত পালন করতে হয়।
 
প্রয়োগ: ইসলাম ধর্মমতে হিজরি রমজান মাসে রোজা রাখা ফরজ।
 
রোজা ও রমজান শব্দের বানান:  রোজা বানানে বর্গীয়-জ। এটিই প্রমিত বানান। অনুরূপ: রোজাদার, রোজ হাশর, রোজনামা, রোজনামচা, রোজকার, রোজগার, রোজগারি, রোজগেরে। এগুলো ফারসি শব্দ। বিদেশি বিশেষ করে আরবি ও ফারসি শব্দে অন্তস্থ-য-এর স্থলে বর্গীয়-জ বিধেয়। যেমন:
 
অজু, জমজম, মজলুম,রমজান, আজব, আজান, আরজ, ইজ্জত, ইজারা, উজির, ওয়াজিব, কাজি, খাজনা, খারিজ, খোজা, গজল, জনাব, জবাব, জবাই, জব্দ, জমায়েত, জরিপ, জরিমানা, জানাজা, জারি, জিন, জিনিস, জুম্মা, জুমা, মসজিদ, জেলা, জেল্লাদার, জেহাদ, জোলাপ, জোহর, জুলুম, জোব্বা, নজর, নজরানা, জেনা, মজবুত, মজলিশ, হজ, হজম, হজরত, হাজি, হাজির, হাজত, হুজুর—। আজাদ, জোয়ান, জোর, জঙ্গি, জবর, জবরদস্ত, জমিদার, জলদি, জলসা, জাদু, জানোয়ার, জামা, জায়গা, জায়গির, জাহাঁপনা, জাহান্নম, জিগির, জিন, জিন্দা, জিন্দিগি, তরমুজ, বাজার, বাজি, মজা, মজুরি, রোজগার, রোজনামচা, রোজা, নামাজ, জেনানা —-।
 
বাংলায় ব্যবহৃত কয়েকটি আরবি-ফারসি শব্দের বানান
নামাজ
রোজা
অজু/ওজুু
আজান
 
ফজিলত
মিরাজ
ওয়াজিব
জানাজা
 
মসজিদ
জিয়ারত
ফরজ
জাকাত
 
কুরবানি/কোরবানি
জবেহ
 
 
error: Content is protected !!