শব্দার্থে প্রবাদ-বাণী দেশে দেশে শুবাচ

ড. মোহাম্মদ আমীন
১. কিপ্টে: সে-ই, যার ছেলে উড়নচণ্ডী (ফারসি)।
২. ডিম: শপথের মতোই যা পুট করে ভাঙে (গ্রিক)।
৩. কুঁড়েমি: যার গতি এত ধীর যে দারিদ্র্য তাকে ধরে ফেলে (ডাচ)।
৪. আশা: বোবাদের জননী (ডাচ)।
৫. সর্দি: যা কর্তার হলে চাকরেরা হেঁচে মরে (পোলিশ)।
৬. ফকির: লাজুক হলে যে শূন্য ঝুলির মালিক (হাঙ্গেরীয়)।
৭. ধার্মিক: যাকে মঠমন্দিরগির্জার বাইরে খুঁজতে হয় (বুলগেরীয়)।
৮. স্ত্রী: যার প্রথম কথায় একবার কান দিলে সারা জীবন সবকথায় কান দিতে হয় (রুমানীয়)।
৯. সুন্দরী: চোখের স্বর্গ, আত্মার নরক, টাকার মড়ক (অ্যাস্তোনীয়)।
১০. আইন: মাকড়সার জাল, যা বোলতাগুলো ছিঁড়ে পালিয়ে যায় কিন্তু মাছিগুলো আটকে যায় (গ্রিক)
১১. সৌভাগ্য: যা পেলে মোরগও ডিম পাড়ে (আইরিশ)।
১২. প্রেম: যা টাকার লেজে লেজে ঘোরে (আইরিশ)।
১৩. ভাগ্যবান: যে এখনও জন্মায়নি (গ্রিক)।
১৪. রূপসি: জন্মাবার আগেই যার বিয়ে হয়ে গিয়েছে (ইতালীয়)।
১৫. চোর: যে সবাইকে জোচ্চোর ভাবে (স্পেনীয়)।
১৬. অর্ধাঙ্গিণী: অর্ধক অঙ্গ হানি করেন যিনি (আফ্রিকা)।
১৭. চোর: নিশি রাতের কুটুম্ব (বাংলা)।
১৮. বলদ: আদর্শ স্বাম (মার্কিন)।
১৯. ভালোবাসা: উদ্দেশ্য পূরণের নান্দনিক কৌশল; কুশলী ডাকাতি।
২০. ভাগ্য: বিড়ালের সামনে শিকে ছিঁড়ে পড়া। 
———————————————————–
সূত্র : বাগার্থকৌতুকী, জ্যোতিভূষণ চাকী, কলকাতা।
২. অদ্‌ভূত অভিধান, ড. মোহাম্মদ আমীন, বাংলাদেশ।
error: Content is protected !!