শুবাচ অভিধান: আদেশ ও নির্দেশ: বপন ও রোপণ: অজ্ঞানবাদ ও অজ্ঞাবাদী

আদেশ ও নির্দেশ
বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত আদেশ(আ+√দিশ্‌+অ) শব্দের অর্থ – হুকুম, অনুমতি, উপদেশ, অনুশাসন প্রভৃতি। এবার অর্থানুসারে,

পাঞ্রেরী পাবলিকেশন্স লি.

হুকুম : প্রধানমন্ত্রীর আদেশ ছাড়া কাজটি করা যাবে না।
অনুমতি : প্রধানমন্ত্রীর আদেশ নিয়ে কাজটি করা হয়েছে।
উপদেশ : গুরুজনের আদেশ মান্য করা উচিত।
অনুশাসন : মহামান্য রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে সুস্পষ্ট অনুশাসন জারি করেছেন।

বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত সংস্কৃত (নির্‌+√দিশ+অ) অর্থ – নির্ধারণ, স্থিরীকরণ, বিশেষভাবে প্রদর্শন, আদেশ, উপদেশ প্রভৃতি।
নির্ধারণ : পাণিনি সংস্কৃত ব্যাকরণের অনেক সূত্র নির্দেশ করে দিয়েছেন।
স্থিরীকরণ : বিয়টি অনুধাবনের জন্য এই প্রবন্ধের নির্দেশই যথেষ্ট।
বিশেষভাবে প্রদর্শন : তথ্যসূত্রে প্রতিটি বিষয়ের উৎস নির্দেশ করা হয়েছে।
আদেশ : প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ছাড়া কাজটি করা যাবে না।
উপদেশ : গুরুজনের নির্দেশ মান্য করা উচিত।

উপরের পর্যালোচনায় দেখা যায় আদেশ, উপদেশ, হকুম, অনুশাসন প্রভৃতি অর্থ প্রকাশে ‘আদেশ’ ও ‘নির্দেশ’ সমার্থক শব্দ। এ অর্থগুলো প্রকাশে ‘আদেশ’ বা ‘নির্দেশ’ যে-কোনো শব্দ ব্যবহার করা যায়। বাক্যে কখন কোনটি শোভনীয় হবে, তা নির্দেশ করার জন্য লেখকের বাঞ্ছাই যথেষ্ট।

বপন ও রোপণ
বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানমতে, সংস্কৃত ‘রোপণ (√রুহ্‌+ণিচ+অন)’ শব্দের অর্থ জমিতে গাছের চারা পোঁতা বা লাগানোর কাজ, আরোপ, স্থাপন প্রভৃতি। ওই অভিধানে ‘বপন (√বপ্‌+অন)’ শব্দকে ‘রোপণ’ শব্দের সমার্থক দেখানো হয়েছে। সুতরাং অভিধানমতে, দুটি শব্দের অর্থ অভিন্ন। তবে প্রয়োগে ভিন্নতা রয়েছে। সাধারণভাবে বলতে গেলে বলা যায়, ‘বপন’ ও ‘রোপণ’ দুটি শব্দেরই অর্থ পোঁতা। কিন্তু প্রয়োগের পার্থক্য অবশ্যই বজায় রাখতে

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

হবে। বীজকে বপন এবং বৃক্ষকে রোপণ করতে হবে। বৃক্ষকে রোপন করা হয় কিন্তু বীজকে রোপন করা হয় না, বপন করা হয়। এজন্য বৃক্ষরোপণ অভিযান চলে কিন্তু বৃক্ষবপন অভিযান চলে না। বাচ্চা ও শিশু সমার্থক। তবে মানুষের বাচ্চা বলা গালি এবং সমীচীন নয়। বাঘের বাচ্চা বলা যায়, বিড়ালের বাচ্চা বলা যায়। মানুষের ক্ষেত্রে বলতে হয় শিশু। যেমন : মানবশিশু।

রবীন্দ্রনাথও বপন করেছেন। তবে জমিতে নয়, বাতাসে। তা অবশ্য বীজ বা বৃক্ষ কোনোটিই নয়। তিনি বপন করেছেন স্বপন।তিনি লিখেছেন, “আমি কেবলই স্বপন করেছি বপন বাতাসে।”

অজ্ঞানবাদ ও অজ্ঞাবাদী 
ইন্দ্রিয়গ্রাহ্য জগতের বাইরে কিছু থাকলেও তা মানুষের পক্ষে জানা অসাধ্য এমন মতবাদকে অজ্ঞানবাদ (অজ্ঞান+√ বদ্+অ) বলা হয়। এটি অজ্ঞাবাদ ও অজ্ঞেয়বাদ শব্দের সমার্থক। উৎস হিসেবে সংস্কৃত ও বাক্যে বিশেষ্য হিসেবে ব্যবহৃত ‘অজ্ঞানবাদ’ শব্দের ইংরেজি agnosticism। ‘অজ্ঞানবাদ’ বিশ্বাসীদের বলা হয় অজ্ঞাবাদী বা অজ্ঞেয়বাদী।


All Link

বিসিএস প্রিলি থেকে ভাইভা কৃতকার্য কৌশল

ড. মোহাম্মদ আমীনের লেখা বইয়ের তালিকা

বাংলা সাহিত্যবিষয়ক লিংক

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/২

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন /৩

কীভাবে হলো দেশের নাম

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

error: Content is protected !!