শুবাচ অভিধান : রামবাগ্‌

রামবাগ্‌
রাম হিন্দু দেবতা বিষ্ণুর সপ্তম অবতার। হিন্দুধর্মে তিনি একজন জনপ্রিয় দেবতা। ভারতীয় পুরাণে রামকে অযোধ্যার রাজা বলা হয়েছে। রাজা ও দেবতা রাম-এর বড়ত্ব হতে নিচের বাক্যভঙ্গিগুলো বৃহৎ-বাচক শব্দে পরিণত হয়েছে :
রামকুঁড়ে : অতিশয় কুঁড়ে
রামকলা : বড় কলা
রামখিলি : বড় পানের খিলি
রামঘুঘু – বড় ঘুঘু
রামছাগল – বড় ছাগল
রামঝিঙ্গা – বড় ঝিঙ্গা
রামঢাক – বড় করতাল (বাদ্য)
রামদা – বড় দা
রামধনু – ইন্দ্র ধনু, বড় ধনু
রামপটোল – বড় পটোল
রামবেণী – বৃহৎবেণী
রামবোকা- অতিমাত্রায় বোকা
রামশালিক – বড় শালিক
রামধোলাই – সাংঘাতিক পিটুনি
এমন আরও আছে কি?

স্বপন মাঝির মন্তব্য থেকে-
রামকাড়া : কাড়া ( শ্রবণ কাড়ে এমন বাদ্যযন্ত্র ) সমূহের মধ্যে সবচেয়ে বড় ( ধরণের ) যে কাড়া ।
রামচকা : চকা ( চক্রবাক পাখী ) সমূহের মধ্যে সবচেয়ে বড় (জাতের ) যে চকা ।
রামচন্দ্র : চন্দ্র ( চাঁদি, কাঁচা টাকা, লক্ষ্মীমন্ত বিনয়োগ পুঁজি, যে টাকা খেলে সেই ক্রীয়াকারী পুঁজি ) সবচেয় বড় ( পরিমাণের ) যে চন্দ্র ।
রামরাজত্ব : সবচেয়ে বড় যে রাজত্ব।
রামরাজ্যঃ সবচেয়ে বড় বা শ্রেষ্ঠ বলিয়া কাম্য যে রাজ্য।
রামশিঙা : শিঙা সমূহের মধ্যে সবচেয়ে বড় যে শিঙা ।
রামায়ণ : রাম-এর অয়ন বোধে পরিণত যাহাতে; অথবা, যে মহাকাব্যে রাম-এর বিষয়ে সব কথা লিখিত বা গীত হইয়াছে।
প্রাসঙ্গিক বলে ক্রিয়াভিত্তিক শব্দার্থও দিয়ে দিলাম ।
রাম : রম ( আবর্ত্তনের সীমায়ন ) হইতে জাত; অথবা, আবর্ত্তমানের বা ক্রীড়াকারীর ক্রীড়ার সর্ব্বোচ্চ সীমা যাহাতে ( যে স্থান কাল পাত্রে ); কিংবা, অস্তিত্ববানের আবর্ত্তের সর্ব্বোচ্চ সীমায় ক্রীড়ারত যে ।
(সূত্রঃ সরল শব্দার্থকোষ। রবি চক্রবর্তী, কলিম খান )
যে স্থানে রমন করা হয় ( বঙ্গীয় শব্দকোষ/ হরিচরণ বন্দোপাধ্যায় )

মোরশেদ হাসান : রামসাগর, রামকেলি, রামখড়ি, রামজামা, রামটেপা, রামঠেলা, রামদৌড়, রামপাখি, রামলীলা, রামডলা।

error: Content is protected !!