শুবাচ বাংলা সাধারণ জ্ঞান /১

শুবাচ: বাংলা সাধারণ জ্ঞান/১

ড. মোহাম্মদ আমীন

প্রশ্ন/১: মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস রচনার পথিকৃৎ কে?
উত্তর: অনেকের মতে, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট মিরজা আবদুল হাই (১৯১৯-১৯৮৪ খ্রি.) বাংলা সাহিত্যে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক উপন্যাস রচনার পথিকৃৎ। মিরজা আবদুল হাই-এর প্রকৃত নাম মিরজা আবু মুসা আবদুল হাই। ১৯১৯ খ্রিষ্টাব্দের ১লা ডিসেম্বর সিলেট জেলার হবিগঞ্জ মহকুমার আবদা গ্রামে তাঁর জন্ম। পিতা মিরজা আবদুল হেকিম ছিলেন এলএমএফ চিকিৎসক।

তিনি ১৯৫৪ খ্রিষ্টাব্দে ইস্ট পাকিস্তান জুনিয়র সিভিল সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে প্রশাসন বিভাগে যোগ দেন। পরের বছর তিনি ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট এবং ১৯৬৪ খ্রিষ্টাব্দে ইসলামাবাদের কেন্দ্রীয় সচিবালয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে  সহকারী সচিব পদে যোগদান করেন। এ পদে তিনি ১৯৭৩ খ্রিষ্টাব্রে জানুয়ারি মাসে পাকিস্তান হতে পালিয়ে ঢাকায় চলে আসেন এবং ঢাকায় বাংলাদেশ ট্রেডিং কর্পোরেশনের ঊর্ধ্বতন নির্বাহী পদে নিযুক্ত হন। ১৯৭৫ খ্রিষ্টাব্দে তিনি উপসচিব পদে উন্নীত হয়ে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেন এবং ১৯৭৮ খ্রিষ্টাব্দে উপসচিব হিসেবে চাকরি হতে অবসর গ্রহণ করেন।

তাঁর প্রকাশিত গল্পগ্রন্থ ছায়া-প্রচ্ছায়া  (১৯৭৬), বিস্ফোরণ (১৯৭৮) এবং উপন্যাস ফিরে চলো (১৯৭৯), তোমার পতাকা (১৯৮১) ইত্যাদি। তাঁর ফিরে চলো মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একটি সফল  উপন্যাস। তিনি ছোটগল্পের জন্য বাংলা একাডেমী (বর্তমানে একাডেমি) পুরস্কার (১৯৭৭ খ্রি.) লাভ করেন। ১৯৮৪ খ্রিষ্টাব্দের ২৩ শে সেপ্টেম্বর ঢাকায় তাঁর মৃত্যু হয়। 

প্রশ্ন/২: বাংলা সাহিত্যের দাদামশাই কে?
উত্তর: প্রশাসক কেদারনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় (১৮৬৩খ্রি. -১৯৪৯ খ্রি.) বাংলা সাহিত্যে দাদামশাই নামে খ্যাত।

প্রশ্ন/৩: পৃথিবীর আদি মহাকবি কে?
উত্তর: রামায়ণের আদি রচয়িতা মহর্ষি বাল্মীকি পৃথিবীর আদি মহাকবি হিসেবে স্বীকৃত।

প্রশ্ন/৪: পৃথিবীর কোন্‌ গ্রন্থ সাধারণ মহাকাব্য হয়েও ধর্মগ্রন্থের মর্যাদা লাভ করে?
উত্তর: রামায়ণ পৃথিবীর একমাত্র গ্রন্থ যা একটি সাধারণ মহাকাব্য হওয়া সত্ত্বেও ধর্মীয় গ্রন্থের মর্যাদা লাভ করে।

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

error: Content is protected !!