সংগীত কিন্তু সম্বোধন কেন; অসূর্যম্পশ্যা; চন্দ্রবিন্দু হয় না কেন

ড. মোহাম্মদ আমীন

সংগীত কিন্তু সম্বোধন কেন; অসূর্যম্পশ্যা; চন্দ্রবিন্দু হয় না কেন

সম্+গীত = সংগীত, কিন্তু সম্+বোধন =সংবোধন নয় কেন?
কারণ, ‘ম্’-এর পর ‘বর্গীয়-ব’ থাকলে ওই ‘ম্’ অবিকল থাকবে, অনুস্বার (ং) হবে না। যেমন: সম্বন্ধ, সম্বোধি, সম্বন্ধী, সম্বরা, সম্বল, সম্বাধ, সম্বুদ্ধ, সম্বোধন প্রভৃতি।
অন্যদিকে, ‘ম্‌’-এর পর ‘অন্তঃস্থ-ব’ থাকলে সেটি পরিবর্তিত হয়ে অনুস্বার (ং) হয়ে যায়। যেমন: কিংবদন্তি, কিংবা, সংবর্ধনা, সংবাদ প্রভৃতি। এখন কেউ যদি প্রশ্ন করেন, ‘বর্গীয়-ব’ এবং ‘অন্তঃস্থ-ব’ কীভাবে বোঝা যাবে? হায়াৎ মামুদ বললেন, বোঝার কোনো উপায় নেই। অধ্যয়ন আর অনুশীলনই একমাত্র নির্দেশক।
সূত্র: ব্যাবহারিক প্রমিত বাংলা বানান সমমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.
 

অসূর্যম্পশ্যা

“বানানটি ভুলে যাই বারবার, কীভাবে মনে রাখব? এর অর্থ কী?”
অসূর্যম্পশ্যা শব্দের উচ্চারণ অশুর্‌জম্‌পোশ্‌শা। সংস্কৃত অসূর্যম্পশ্যা অর্থ (বিশেষ্যে) যে নারীকে সূর্যকিরণও স্পর্শ করেনি, অন্তঃপুরবাসিনী, যে নারী কঠোরভাবে পর্দ মেনে চলে। অনেকে লিখেন অসূর্যস্পশ্যা। অসুর্যস্পশ্যা লিখবেন না। এখানে স্পর্শের কিছু নেই। বরং স্পর্শহীনতা আছে। তাই লিখুন অসূর্যম্পশ্যা।
 
নিমোনিক: অসূর্যম্পশ্যা অর্থ এমন একজন মহিলা যে সর্বদা পর্দা মেনে চলে, এমন পর্দা-কর মহিলা যাকে সূর্যের আলো পর্যন্ত স্পর্শ করতে পারেনি। তাই সূর্য শব্দের পর মহিলা বানানের ম্ দিতে হয়। অতঃপর ম-এর সঙ্গে পর্দা বানানের প্ যুক্ত করে দিন। কারণ মহিলাকে পর্দা-যুক্ত না করলে অসূর্যম্পশ্যা হবে কীভাবে?
 
ঙ, ঞ, ন, ণ, ম, এবং অনুস্বার (ং) এ নাসিক্যব্যঞ্জনগুলোর সাথে চন্দ্রবিন্দু যুক্ত হয় না কেন?
ঙ, ঞ, ন, ণ, ম এবং ং (অনুস্বার) ব্যঞ্জনগুলোর একটি স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য ও বুৎপত্তি রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে এ বর্ণগুলো মূল সংস্কৃত শব্দ থেকে সুস্পষ্টভাবে অপভ্রষ্ট হয়ে তদ্ভব শব্দে চন্দ্রবিন্দুর রূপ ধারণ করে বাংলা ভাষায় অবস্থান করে। যেমন: অন্ত্র থেকে আঁত, অঞ্চল থেকে আঁচল, ষণ্ড থেকে ষাঁড়, গ্রাম থেকে গাঁ, শঙ্খ থেকে শাঁখ, ঝম্প থেকে ঝাঁপ, বংশ থেকে বাঁশ, সিন্দুর থেকে সিঁদুর, সামন্তপাল থেকে সাঁওতাল, চম্পা থেকে চাঁপা, কঙ্কন থেকে কাঁকন, কণ্টক থেকে কাঁটা, ভাণ্ড থেকে ভাঁড় ইত্যাদি। এ জন্য নাসিক্যব্যঞ্জনগুলোর সাথে চন্দ্রবিন্দু যুক্ত হয় না।
[বিধুভূষণের মন্তব্য: ওরা নিজেরাই চন্দ্রবিন্দুর আশ্রয়ে অন্যের মাথায় বসে, তাই বোধ হয় তাদের মাথায় চন্দ্রবিন্দুকে বসতে বলার সাহস পায় না! আচ্ছা, এই নাসিক্য বর্ণগুলোর অদৃশ্য হয়ে ঁ হওয়ার সাথে কী আমাদের মরার পর নামের আগে ঁ ব্যবহারের (যেমন- আমি মরার পর ঁবিধুভূষন হয়ে যাবো) কোন যোগসূত্র আছে?!]
error: Content is protected !!