সব বৌ মারা গেছে একসাথে হঠাৎ শিক্ষিত এক পোকার কাহিনি

ড. মোহাম্মদ আমীন

সব বৌ মারা গেছে একসাথে হঠাৎ

এখন কোনো বৌ নেই। কারও বৌ নেই। সবাই বউ। বাংলা একাডেমির অভিধানেও নেই। শিশুদের পুস্তকেও নেই। বউ লিখলে বৌ-এর ঘোমটার কী হবে গো? কিচ্ছু হবে না। ব-য়ে ঘোমটা পরা বৌ লিখলে কেউ আপনাকে বিয়েই করবে না।
কেন?
আধুনিক বউ ঘোমটা পরে না। বৌরা এখন ঘোমটা ছেড়ে প্রমিত বউ। কে থাকতে চায় অপ্রমিত।অপ্রমিত থাকলে তো আপনিও বিয়ে করবেন না, তাই না?
আগে ঘোমটা-পরা বউ (বৌ) পড়তাম:
“বাক বাক্‌ কুম পায়রা / মাথায় দিয়ে টায়রা
বৌ সাজবে কাল কি /চড়বে সোনার পালকি।”
এখন ঘোমটা-পরা বৌ পড়ি না, ঘোমটাবিহীন পড়ি।
“বাক বাক্‌ কুম পায়রা/ মাথায় দিয়ে টায়রা
বউ সাজবে কাল কি/ চড়বে সোনার পালকি।”
তেমনি: ওই, মউ, অথই, খই, কই, দই, বইকি, বই। তবে, চৌদ্দ কিন্তু চউদ্দ এবং মৌমাছিও মউমাছি হয়নি। যাদের একলা পেয়েছে তাদের ঘোমটাটাই কেবল ছিনিয়ে নেওয়া হয়ছে। দুর্বলের বউ সবার ভাবী। এটাই এখন ভাবি।
ভাবী: বড়ো ভাইয়ের বউ।
ভাবি: চিন্তা করি।
ভাবীকে নিয়ে আমি খুব ভাবিভাবী কি আমাকে নিয়ে ভাবে?

অক্ষরসমৃদ্ধ এক জ্ঞানী ও শিক্ষিত পোকার কাহিনি

অনেকে মনে করে কেবল মানুষই লেখাপড়া করতে পারে এবং মানুষেরই কেবল অক্ষর এবং অক্ষরজ্ঞান আছে। না, মানুষ ছাড়াও আর একটা প্রাণীর অক্ষর ও অক্ষরজ্ঞান আছে। সেটি একটি পোকা। নাম ঘুণ।
বাঙালি যে অক্ষর দিয়ে লেখাপড়া করে তার নাম বাংলা অক্ষর; ইংরেজ যে অক্ষর দিয়ে লেখাপড়া করে তার নাম ইংরেজি অক্ষর। তেমনি ঘুণপোকা যে অক্ষর দিয়ে লেখাপড়া করে সেটি ঘুণাক্ষর।
তৎসম ঘুণ (√ঘুণ+অ) অর্থ (বিশেষ্যে) কাঠের ঘরবাড়ি, আসবাবপত্র প্রভৃতি কুরে খেয়ে ধ্বংস করে এমন অতি ক্ষুদ্র অমেরুদণ্ডী কীট, পোকা।
সংস্কৃত ঘুণাক্ষর (ঘুণ+অক্ষর) অর্থ (বিশেষ্যে) ঘুণপোকা কাঠ বা কাগজ কুরে খাওয়ার ফলে সৃষ্ট অক্ষরসদৃশ চিহ্ন; (আলংকারিক) সামান্যতম ইঙ্গিত। এরা খুব দ্রুত লিখতে পারে। তাদের লেখা মানুষের লেখার চেয়ে সুন্দর, স্থায়ী এবং ভয়ংকর।
ঘুণপোকারা যে অক্ষর দিয়ে লেখাপড়া করে সেটিই ঘুণাক্ষর। এরা এত উচ্চশিক্ষিত যে, পৃথিবীর যে-কোনো কেতাব, গ্রন্থ বা বইয়ের ওপর লিখতে পারে। তাদের অক্ষরও বেশ সুন্দর। মুগ্ধ হয়ে যেতে হয় দেখে। ভাষাটাও হৃদয়গ্রাহী। যখন তারা লেখে তখন কান পাতলে শোনা যায়।
নিমোনিক: ঋ ঋৃ র ষ- প্রভৃতি বর্ণের পরে যদি প্রত্যয়ের দন্ত্য-ন আসে তবে তা ণ হয়ে যাবে। ণত্ববিধি অনুসারে ঘুণ বানানে ণ হওয়ার মতো কোনো শর্ত নেই, তারপরও ণ কেন? ঘুণ বানানের ণ, স্বাভাবিক ণত্ব। এমন ণ কোনো শর্ত মানে না। কিন্তু মনে রাখবেন কীভাবে? পাণিনি, ঘুণপোকার জ্ঞানবুদ্ধি আর লেখাপড়ার আগ্রহ দেখে তাদের গুণ বানানের ণ দিয়ে ভূষিত করেছেন।
———–

All Link : শুবাচে প্রকাশিতগুরুত্বপূর্ণ লেখা

উপর বনাম ওপর

বিসিএস প্রিলি থেকে ভাইভা কৃতকার্য কৌশল

ড. মোহাম্মদ আমীনের লেখা বইয়ের তালিকা

বাংলা সাহিত্যবিষয়ক লিংক

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/২

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন /৩

কীভাবে হলো দেশের নাম

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

বাংলাদেশের তারিখ

ব্যাবহারিক বাংলা বানান সমগ্র, ড. মোহাম্মদ আমীন, পাঞ্জেরী পবিলেকশন্স লি.

শুদ্ধ বানান চর্চা প্রমিত বাংলা বানান বিধি : বানান শেখার বই

কি না  বনাম কিনা এবং না কি বনাম নাকি

মত বনাম মতো : কোথায় কোনটি এবং কেন লিখবেন

ভূ ভূমি ভূগোল ভূতল ভূলোক কিন্তু ত্রিভুবন : ত্রিভুবনের প্রিয় মোহাম্মদ

মত বনাম মতো : কোথায় কোনটি এবং কেন লিখবেন

প্রশাসনিক প্রাশাসনিক  ও সমসাময়িক ও সামসময়িক

বিবিধ এবং হযবরল : জ্ঞান কোষ

সেবা কিন্তু পরিষেবা কেন

ভাষা নদীর মতো নয় প্রকৃতির মতো

এককথায় প্রকাশ

শব্দের বানানে অভিধানের ভূমিকা

আফসোস নিয়ে আফসোস

লক্ষ বনাম লক্ষ্য : বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন

error: Content is protected !!