সমাস ও এককথায় প্রকাশ বা বাক্য সংকোচনের পার্থক্য

সমাস বনাম এক কথায় প্রকাশ

এবি ছিদ্দিক

“এককথায় প্রকাশের ক্ষেত্রে একাধিক পদকে একটি পদের সাহায্যে প্রকাশ করা হয়। আবার, সমাসের ক্ষেত্রেও একাধিক পদকে একটি পদে পরিণত করে

এবি ছিদ্দিক

প্রকাশ করা হয়। তাহলে ‘এককথায় প্রকাশ’ আর ‘সমাস’-এর মধ্যে পার্থক্য কোন জায়গায়?” শুবাচি জনাব হৃদয় আহসানের মতো বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের অনুরাগী যে-কোনো শিক্ষার্থীর মনে এই সুন্দর প্রশ্নটির উদ্ভব হতে পারে। তাঁদের প্রশ্নের জবাব মোটামুটি নিম্নরূপ:

এককথায় প্রকাশ ও সমাসের ক্ষেত্রে যে মূল পার্থক্যটি লক্ষ করা যায়, সেটি হচ্ছে— সমাসের ক্ষেত্রে ব্যাসবাক্যের প্রধান পদ (শব্দ) দুটি (সংস্কৃতে দুইয়ের অধিক পদ সমাসবদ্ধ হলেও বাংলায় সাধারণত দুইটি পদ সমাসবদ্ধ হয়) সমাসবদ্ধ (সমস্ত) পদেও দৃশ্যমান থাকে, কিন্তু এককথায় প্রকাশের ক্ষেত্রে বিস্তৃত বাক্যের সকল প্রধান পদ সংকুচিত পদে দৃশ্যমান থাকে না। বক্তব্যটি স্পষ্টতর করার জন্য কয়েকটি উদাহরণ উল্লেখ করছি—

১. মহান যে রাজা = মহারাজা; এখানে, ব্যাসবাক্যটির প্রধান পদ দুটি হচ্ছে ‘মহান’ আর ‘রাজা’। যেহেতু সমাসবদ্ধ পদে উভয় প্রধান পদই দৃশ্যমান, সেহেতু এটি একটি সমাসের উদাহরণ।

২. মন রূপ মাঝি = মনমাঝি; এখানে, ব্যাসবাক্যটির প্রধান পদ দুটি হচ্ছে ‘মন’ আর ‘মাঝি’। যেহেতু সমাসবদ্ধ পদে উভয় প্রধান পদই দৃশ্যমান, সেহেতু এটি একটি সমাসের উদাহরণ।

৩. গুরুকে ভক্তি = গুরুভক্তি; এখানে, ব্যাসবাক্যটির প্রধান পদ দুটি হচ্ছে ‘গুরু’ আর ‘ভক্তি’। যেহেতু সমাসবদ্ধ পদে উভয় প্রধান পদই দৃশ্যমান, সেহেতু এটি একটি সমাসের উদাহরণ।

৪. যা জলে ও স্থলে চরে = উভচর; এখানে, বিস্তৃত বাক্যের প্রধান পদসমূহ হচ্ছে ‘জল’, ‘স্থল’ আর ‘চরা’। কিন্তু সংক্ষেপিত বা সংকুচিত পদে দৃশ্যমান কেবল ‘চরা’। তাই, এটি এক কথায় প্রকাশের উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করতে হবে।

৫. যা বলার যোগ্য নয় = অকথ্য; এখানে, বিস্তৃত পদের প্রধান শব্দসমূহ হচ্ছে ‘বলার’, ‘যোগ্য’ আর ‘নয়’। কিন্তু সংকুচিত পদে স্থান পেয়েছে কেবল ‘নয়'(অ)। তাই, এটি এক কথায় প্রকাশের উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করতে হবে।

৬. যে পুরুষ বিয়ে করেছে = কৃতদার; এখানে, বিস্তৃত বাক্যের প্রধান শব্দ দুটি হচ্ছে ‘পুরুষ’, ‘বিয়ে’ আর ‘করেছে’। কিন্তু সংকুচিত পদে এদের কোনোটিই দৃশ্যমান নয়। তাই, এটি এক কথায় প্রকাশের উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করতে হবে।

উল্লেখ্য, কোনো এককথায় প্রকাশে যদি সংকুচিত পদেও বিস্তৃত পদের প্রধান পদসমূহ দৃশ্যমান থাকে, তবে সেটি একই সঙ্গে সমাস ও বাক্য সংকোচনের উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করা যাবে। যেমন:
১. অরিকে দমন করে যে = অরিন্দম; বাক্য সংকোচনও, আবার উপপদ তৎপুরুষ সমাসও।

২. জলে চরে যা = জলচর; বাক্য সংকোচনও, আবার সপ্তমী তৎপুরুষ সমাসও।

error: Content is protected !!