সরকারি কর্চারী : ছয় মাসে বছর যাদের : ১০০ দিনে ৪০ দিন : নেই হয়ে যায় যেভাবে

সরকারি কর্মচারী : ১০০ দিনে ৪০ দিন নাই হয়ে যায় যেভাবে
ড. মোহাম্মদ আমীন 
জানুয়ারি (২০২০) মাসে মোট ছুটি ৮ দিন। ৮ দিনই সাপ্তাহিক ছুটি। এছাড়া  এ মাসে আর কোনো ছুটি নেই। ইচ্ছা করলে ছুটিবিধি অনুযায়ী নির্ধারিত বিশ দিন নৈমিত্তিক ছুটির কয়েক দিন ভোগ করা যায়। ফেব্রুয়ারি (২০২০) মাসে ২১ শে ফেব্রুয়ারি-সহ মোট ছুটি ৯ দিন। তবে ২১শে ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ও শনিবার হওয়ায় শহিদ দিবসের ছুটিটা সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে একসঙ্গে ভোগ করতে হবে। এমন ছুটি সরকারি কর্মচারীদের জন্য পীড়াদায়ক। যাই হোক, প্রয়োজন হলে ছুটিবিধি অনুযায়ী নির্ধারিত বিশ দিনের নৈমিত্তিক ছুটির কয়েক দিন ভোগ করা যায়। মার্চ (২০২০) মাসে মোট ছুটি ১০ দিন। তন্মধ্যে ৮ দিন সাপ্তাহিক ছুটি, ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিবস এবং ২৬ মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস। ১৩ই মার্চ ও ১৪ই মার্চ যথাক্রমে শুক্র ও শনিবার। তাই ১৫ই মার্চ ও ১৬ই মার্চ ছুটি নিলে একসঙ্গে মোট পাঁচ দিন ছুটি উপভোগ করা যাবে। কিন্তু দুই ছুটির মাঝখানে নৈমিত্তিক ছুটি নিলে সব ছুটি নৈমিত্তিক ছুটি হতে কর্তিত হয়ে যায়। এজন্য কাগজকলমে দুই ছুটির মধ্যবর্তী ছুটি নিতে তেমন দেখা যায় না। তবে মৌখিক ছুটি বা কুশলী ছুটি নিতে দেখা যায়। বসকে বলে দুদিন না এলে হয়। অনেকে ছুটির দরখাস্ত রেখে যায়, জুনিয়রদের বলে যায়- অপরিহার্য হলে উপস্থাপন করিও। বস এবং বসের বসগণ এমন দুই নম্বরি করে থাকেন।
 

এপ্রিল মাসে ৮ দিন সাপ্তাহিক ছুটি-সহ মোটি ছুটি ১০ দিন। তন্মধ্যে ১৪ই এপ্রিল মঙ্গলবার বাংলা নববর্ষ। বুধ ও বৃহস্পতিবার যদি কুশলী ছুটি নিতে পারেন, তাহলে ছুটি হযে যাবে ১৩ তারিখ থেকে ১৮ তারিখ পর্যন্ত মোট ৫দিন। যদি আবশ্যক হয়, তাহলে নৈমিত্তিক ছুটি তো আছেই।মে মাসে মোট দশ দিন সাপ্তাহিক ছুটিসহ মোট ছুটি ১৫ দিন।  এ মাসেই  রয়েছে মে দিবস, বুদ্ধি পূর্ণিমা, জুমাতুল বিদা এবং ইদ-উল-ফিতরের ছুটি। এ বছর (২০২০ খ্রি.) মাসে ২১ তারিখ থেকে ২৬ তারিখ পর্যন্ত টানা ছয় দিন ছুটি। মাঝখানের ২৭ ও ২৮ তারিখ যথাক্রমে বুধ ও বৃহস্পতিবার কুশলী ছুটি নিলে

ক্যালেন্ডার/২০২০

৩০ তারিখ পর্যন্ত ছুটি ভোগ করা যাবে। ৩১ তারিখ আসার প্রয়োজন কী? ওইদিন অধিকাংশ বস অনুপস্থিত থাকেন। তাহলে এ মাসে মোট ছুটি হচ্ছে একনাগাড়ে ১১দিন। জুন(২০২০) মাসে রয়েছে ৮দিন নৈমিত্তিক ছুটি। এছাড়া আর কোনো ছুটি নেই। অবশ্য কেউ ইচ্ছা করলে নৈমিত্তিক-ছুটি বা অন্যান্য ছুটি ভোগ করতে পারেন। জুলাই মাসটি সরকারি কর্মচারীদের একটু রসকষহীন যাবে। এই মাসে সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়া আর কোনো ছুটি নেই। তবে নৈমিত্তিক ছুটি নিয়ে রসময় করে তোলা যায়।

অগাস্ট (২০২০) মাসে ৯ দিন সাপ্তাহিক ছুটিসহ মোট ১১দিন ছুটি রয়েছেসেপ্টেম্বর (২০২০) মাসে আট দিন সাপ্তাহিক ছুটি। এছাড়া আর কোনো সরকারি ছুটি নেই। এই মাসে সাপ্তাহিক ছুটির সঙ্গে অন্য ছুটি যুক্ত করা লাভজনক হবে না। প্রয়োজন হলে সুবিধামতো নৈমিত্তিক ছুটি নেওয়া যাবে।অক্টোবর (২০২০) মাসে মোট ছুটি ১১ দিন। তন্মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি মোট ১০দিন এবং ২৬ শে অক্টোবর বিজয়া দশমী। এই মাসে ২৫ তারিখ রবিবার মৌখিক ছুটি নিতে পারলে টানা চার দিন ছুটি ভোগ করা যাবে। নৈমিত্তিক ছুটি কয়দিন বাকি আছে তা প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে সমন্বয় করে উপভোগ করা যায়। নভেম্বর (২০২০) মাসে সাপ্তাহিক ছুটি ৮দিন। এছাড়া এ মাসে আর কোনো সরকারি ছুটি নেই। নির্ধারিত বিশ দিনের ঐচ্ছিক ছুটির কয়দিন বাকি আছে দেখে ছুটি ভোগের ব্যবস্থা করা উত্তম। কারণ, বছর শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নৈমিত্তিক ছুটিও শেষ হয়ে যাবে। যথাসময়ে নৈমিত্তিক ছুটি না খেলে সময়ই তাকে খেয়ে ফেলবে। কেননা, বছর ফুরোলে নৈমত্তিক ছুটি আপনা আপনি ফুরিয়ে যাবে। ডিসেম্বর মাসে সাপ্তাহিক ছুটি আট দিন এবং ১৬ই ডিসেম্বর ছুটি একদিন। ১৬ই ডিসেম্বর হচ্ছে বুধবার। পরদিন বৃহস্পতিবারের জন্য মৌখিক বা কুশলী ছুটি নিতে পারলে একনাগাড়ে চার দিন ছুটি উপভোগ করা যাবে। অধিকন্তু, নির্ধারিত বিশ দিনের ঐচ্ছিক ছুটির যে কদিন বাকি আছে তা ছুটিবিধি অনুযায়ী ভোগ করা যাবে।
 
ওপরের হিসেবমতে, ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে সরকারি কর্মচারীদের সাপ্তাহিক ছুটি ১০৪ দিন, সাধারণ ছুটি ও নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি ১৪ দিন এবং নৈমিত্তিক ছুটি ২০ দিন। এ হিসেবে মোটি ছুটি ১৩৮ দিন। যা গত বছরের (২০১৯) চেয়ে ৫দিন কম। কমপক্ষে ১২ দিনের অজুহাত, মৌখিক বা কুশলী ছুটি খুব সহজে পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে মোট ছুটি হয় ১৫০ দিন বা পাঁচ মাস। ১২ মাসের মধ্যে ৫ মাস ছুটি, কাজ করতে হবে মাত্র ৭ মাস- বাকি পাঁচ মাস হাওয়া। অর্থাৎ, ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে সরকারি কর্মচারীগণ ৩৬৫ দিনে অফিস করবেন মাত্র ২১৫ দিন। সহজ কথায়, ৬০ দিন কাজ করে  পেয়ে যাবেন ১০০ দিনের বেতন।  আপনি যদি সরকারি কর্মচারী না হোন, তা তাড়াতাড়ি হয়ে যান।
————————————————————————————————————————————————————–
Language
error: Content is protected !!