সহজ একটি কথা: য-য়ে রেফ থাকলে য-ফলা হবে না

ড. মোহাম্মদ আমীন

য-য়ে রেফ থাকলে য-ফলা হবে না।কারণ প্রমিত বাংলা বানান বিধিমতে, রেফের পর একই ব্যঞ্জনবর্ণের দ্বিত্ব হয় না। র্য্য= র্+য্+য। এখানে য্ স্বরের দ্বিত্ব আছে। সুতরাং য-য়ে রেফ থাকলে য-ফলা দেবেন না। যেমন:

ধৈর্য্য নয়, ধৈর্য।
ধার্য্য নয়, ধার্য।
প্রাচুর্য্য নয়, প্রাচুর্য
সৌন্দর্য্য নয়, সৌন্দর্য।
আশ্চর্য্য নয়, আশ্চর্য।
কার্য্যালয় নয়, কার্যালয়।
 আচার্য্য নয়, আচার্য।
  
অন্যান্য বর্ণে রেফ থাকলেও শব্দের বানান অনুযায়ী য-ফলা থাকতে পারে। যেমন: অর্ঘ্য,  দৈর্ঘ্য, সামর্থ্য  ইত্যাদি। তবে, কর্ত্তা, বর্ত্তমান, ধর্ম্ম, কর্ম্ম প্রভৃতি বানান বিধেয় নয়। লিখতে হবে যথাক্রমে কর্তা, বর্তমান, ধর্ম ও কর্ম।
‘অর্ঘ’ ও ‘অর্ঘ্য’
‘অর্ঘ’ ও ‘অর্ঘ্য’ দুটো ভিন্ন শব্দ। বানান ও অর্থে ভিন্নতা থাকলেও উচ্চারণ অভিন্ন বলে বানানে প্রায়শ ভুল হয়। কোন শব্দের অর্থ কী তা নিয়েও দ্বিধা দেখা দেয়। ‘অর্ঘ’ অর্থ মূল্য, অন্যদিকে ‘অর্ঘ্য’ অর্থ পূজার উপকরণ। বানান দুটো মনে রাখার উপায়: পূজায় অনেক উপকরণ প্রয়োজন, তাই ‘অর্ঘ্য’ বানানে রেফ ও য-ফলা। এটি মনে রাখলে অর্থ ও বানানে ভুল হবার আশঙ্কা থাকবে না।
————————————————————
All Link: একনজরে সব লেখা দেখতে চাইলে এই সংযোগে (All Link) ক্লিক করুন
error: Content is protected !!