উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় বনাম উন্মুক্ত মহিলা টেনিস

ড. মোহাম্মদ আমীন

প্রতিভাধর শুবাচি সুহৃদ জনাব এবি ছিদ্দিক শুবাচে “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” বনাম “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়” শিরোনামের একটি বিশ্লেষণমূলক স্ট্যাটাস দিয়েছেন। স্ট্যাটাসের মূল বক্তব্য তার ভাষ্যে নিম্নে উল্লেখ করা হলো :

“– অনেকের মতে, “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়” নয়, “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” লেখা উচিত। কারণ, “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়” বলতে এমন বিদ্যালয়কে বোঝায়, যেখানে লম্বা লম্বা মেয়েরা অধ্যয়ন করে।  এবি ছিদ্দিকের মতে, এই বক্তব্যটি যথাযথ নয়। তিনি মনে করেন, “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” যেমন শুদ্ধ, তেমনি “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়”-ও শুদ্ধ। অধিকন্তু ব্যাকরণিকভাবে “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় রূপটিই অধিকতর সংগত। এবি ছিদ্দিক-এর ব্যাকরণিক যুক্তি হচ্ছে : “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” রূপটি সবার কাছে পরিচিত এবং সবাই শুদ্ধ হিসেবেই জানেন। তাই এই রূপটি নিয়ে বিতর্ক না করলেও চলে। তারপরও এইভাবে লিখলে শব্দ তিনটি মিলে কী অর্থ প্রকাশ করে, তা উল্লেখ করছি— যখন “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” লেখা হয়, তখন সম্পূর্ণ নামটিতে ‘বালিকা’ ও ‘উচ্চ’ মিলে ‘বিদ্যালয়’-এর বিশেষণ হিসেবে কাজ করে। এখানে ‘উচ্চ’ বিশেষণটি বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিধি তথা স্তরের বিশেষণ হিসেবে কাজ করে এবং ‘বালিকা’ বিশেষণটি উচ্চ বিদ্যালয়টির শিক্ষার্থীর ধরন প্রকাশ করে। যদিও বিশেষণীয় বিশেষণ হিসেবে পাশাপাশি দুটি বিশেষণ লেখা চলে, কিন্তু এক্ষেত্রে ‘বালিকা’ বিশেষণীয় বিশেষণ হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে না। তাই ‘বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়’ রূপটি ব্যাকরণের আলোকে একেবারে যথাযথ বলা যায় না।”

জনাব এবি ছিদ্দিক  আরো লিখিছেন, 

“ —- ‘‘উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়’’ শব্দ তিনটির মধ্যে বিশেষ্য হচ্ছে “বালিকা বিদ্যালয়” এবং এটি একটি সমাসবদ্ধ পদ, যার ব্যাসবাক্য হলো ‘বালিকাদের বিদ্যালয়’। ‘বালিকা বিদ্যালয়’ হচ্ছে একটি সমসবদ্ধ পদ। অর্থাৎ, শব্দ দুটি মূলত একটি শব্দের প্রতিনিধিত্ব করে। তাই শব্দ দুটির পূর্বে কোনো বিশেষণ লেখা হলে, তা কেবল প্রথমটিকে বিশেষিত করবে না, বরং উভয় শব্দকে বিশেষিত করবে। অর্থাৎ, যখন ‘বালিকা বিদ্যালয়’ শব্দযুগলের পূর্বে ‘উচ্চ’ লেখা হবে, তখন ‘উচ্চ’ বিশেষণটি কেবল ‘বালিকা’-কে বিশেষিত না-করে ‘বালিকা বিদ্যালয়’-কে বিশেষিত করবে এবং ‘উচ্চ’ শব্দটি ঐ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার পরিধি বা স্তর নির্দেশ করবে। অতএব, উচ্চ কোনো বালক বা বালিকা বিদ্যালয়ের নাম ‘উচ্চ বালক/বালিকা বিদ্যালয়’ লেখা হলে, তাতে কোনো ব্যাকরণগত ত্রুটি থাকবে না।—”

ব্যাকরিণক প্রজ্ঞা বিবেচনায় এবি ছিদ্দিক আমার চেয়ে ঋদ্ধ। তার ব্যাকরণিক জ্ঞানের যৌক্তিকতা  উপলব্ধি করে তার এই  প্রাজ্ঞিক লেখায় আমি মন্তব্য করেছিলাম, ‘‘সহমত, তবে সবসময় নয়।” কেন- তা বলছি। আমার মতে, “বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়” এর পরিবর্তে, “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়” লেখা ব্যাকরণিকভাবে যতই যৌক্তিক হোক না, কেন; অর্থগতভাবে আদৌ উচিত নয়, শোভনীয়ও নয়। যেমন : “মহিলা উন্মুক্ত টেনিস” আর উন্মুক্ত মহিলা টেনিস” এক নয়। এবার আসি আমার ব্যাখ্যয় :

ইংরেজিতে লেখা হয় ‘.. Girls’ High School .’ কিন্তু বাংলায় লিখতে গিয়ে কেউ কেউ লেখেন ‘… বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়’, কেউ বা লেখেন ‘… উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়’। যেসব মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কেবল বালিকারাই পড়ে, সেসব বিদ্যালয়ের সাইনবোর্ডের দিকে তাকালে এর সত্যতা মেলে। এটি শুদ্ধ নয়, লেখা উচিত ‘বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়’। যেহেতু ইংরেজি Primary School, High School ও College প্রভৃতির বাংলারূপ যথাক্রমে প্রাথমিক বিদ্যালয়, উচ্চ বিদ্যালয় ও মহাবিদ্যালয়। তাই ‘Girls’ High School’ ও ‘Girls’ College”-এর বাংলারূপ হবে যথাক্রমে ‘বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়’ ও ‘বালিকা মহাবিদ্যালয়’। হাইস্কুল মানে উচ্চ বিদ্যালয়। গার্লস যুক্ত হলে হবে ‘বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়’। ‘বয়েজ’ যুক্ত হলে হবে ‘বালক উচ্চ বিদ্যালয়’। এটাই ঠিক। তবে ভুল করে অনেকে ‘উচ্চবালক’ বা ‘উচ্চবালিকা’ স্কুল লিখে থাকেন। বালক বা বালিকা উচ্চ কেন হবে? উচ্চ হবে স্কুল। শুধু উচ্চ-বালিকা নয়।

 উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় যদি ঠিক হয়, তাহলে “মহিলাদের উন্মুক্ত টেনিস-প্রতিযোগিতা” বা “মহিলা উন্মুক্ত টেনিস-প্রতিযোগিতা’  কথাকে “উন্মূক্ত মহিলাদের টেনিস-প্রতিযোগিতা” কিংবা “উন্মুক্ত মহিলা টেনিস-প্রতিযোগিতা”  লেখা যাবে কি? যাবে না।

অতএব বিদ্যালয়ের ক্ষেত্রেও তা ব্যাকরণগত যুক্তিতে ঠিক হলেও “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়” লেখা সমীচীন নয়। ব্যকরণের জীবন নেই, তাই বিবেচনা বোধও নেই, কিন্তু যারা ব্যাকরণ ও ভাষা বুঝেন তাদের জীবন আছে, আছে বোধ ও বিবেচনা। এমন একটি বিশ্লেষণমূলক লেখার জন্য জনাব এবি ছিদ্দিক প্রশংসার দাবিদার।

3 thoughts on “উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় বনাম উন্মুক্ত মহিলা টেনিস”

  1. Pingback: গাহ্-আদিগণ ধাতুর বিভিন্ন রূপের শুদ্ধ বানান  – Dr. Mohammed Amin

  2. Pingback: বাংলা বর্ণ পড়ার নিয়ম – Dr. Mohammed Amin

  3. Pingback: বাংলা বর্ণ পড়ার নিয়ম – Dr. Mohammed Amin

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Language
error: Content is protected !!