কেন না বনাম কেননা

ড. মোহাম্মদ আমীন
‘কেননা’ একটি শব্দ। এর সাধারণ অর্থ যেহেতু। কারণ, হেতু বা ব্যখ্যা প্রভৃতি প্রকাশে ‘কেননা’ শব্দটি ব্যবহার করা হয়। মূলত বাক্যে অব্যয় হিসেবে ব্যবহৃত ‘কেননা’ শব্দের আভিধানিক অর্থ যেহেতু, কারণ প্রভৃতি।যেমন : আমাকে অবশ্যই বাড়ি যেতে হবে, কেননা মা অসুস্থ। সে বুয়েটে ভর্তি হতে অনিচ্ছুক, কেননা ওখানে ভর্তি হলে তাকে হয়তো অল্প বয়সে মরে যেতে হবে।
 
অন্যদিকে ‘কেন’ ও ‘না’ শব্দ দিয়ে ‘কেন না’ কথাটি গঠিত। বাক্যে অব্যয় হিসেবে ব্যবহৃত ‘কেন’ শব্দের অর্থ কী জন্য, কী কারণে প্রভৃতি। ‘কেন না’ কথা দিয়ে বাক্যভেদে প্রশ্ন এবং না দুটোই প্রকাশিত হয়। যেমন : তুমি বাবা বুয়েটে পড়তে কেন না করছ? কেন না করছ আমি জানি। আবার ‘কেন না’ কথাটি ‘কেননা’ শব্দের মতো ব্যাখ্যা, কারণ ও হেতু প্রভৃতি প্রকাশেও ব্যবহৃত হয়। অর্থাৎ কেন না কথাটি ‘না’ কথার কারণ ব্যখ্যায়ও ব্যবহৃত হয়। যেমন: আমি তোমার কথা বিশ্বাস করি না, কেন না তুমি একটা মিথ্যুক। এ ক্ষেত্রে ‘কেননা’ ও ‘কেন না’ সমার্থক। তবে বাক্যের সৌন্দর্য এবং উপস্থাপন বৈচিত্র্য রক্ষায় ‍দুটোর আলাদা বৈশিষ্ট্য রয়েছে। নিচের প্রয়োগগুলো দেখুন :
সে বুয়েটে পড়তে কেন না করছে?
আমি জানি সে বুয়েটে পড়তে কেন না করছে।
 কেন?
কেননা সে অল্প বয়সে সন্ত্রাসী সহপাঠীদের হাতে খুন হতে চায় না।
যদি নিরাপত্তা দেওয়া হয়?
আসলে সে বুয়েটে ভর্তি হবে না, কে না বুয়েট এখন সন্ত্রাসীদের কারখানা।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Language
error: Content is protected !!