এক কথায় প্রকাশ

 

১. কুকুরের ডাক=বুক্কন
২. রাজহাঁসের ডাক=ক্রেঙ্কার
৩. বিহঙ্গের ডাক/ধ্বনি=কূজন/কাকলি
৪. করার ইচ্ছা=চিকীর্ষা
৫. ক্ষমা করার ইচ্ছা=চিক্ষমিষা/তিতিক্ষা

৬. ত্রাণ লাভ করার ইচ্ছা=তিতীর্ষা
৭. গমন করার ইচ্ছা=জিগমিষা
৮. নিন্দা করার ইচ্ছা=জুগুপ্সা
৯. বেঁচে থাকার ইচ্ছা=জিজীবিষা
১০. পেতে ইচ্ছা=ঈপ্সা

১১.চোখে দেখা যায় এমন=চক্ষুগোচর
১২.চোখের নিমেষ না ফেলিয়া=অনিমেষ
১৩.গম্ভীর ধ্বনি=মন্দ্র
১৪.মুক্তি পেতে ইচ্ছা=মুমুক্ষা
১৫.বিজয় লাভের ইচ্ছা=বিজিগীষা

১৬.প্রবেশ করার ইচ্ছা=বিবক্ষা
১৭.বাস করার ইচ্ছা=বিবৎসা
১৮.বমন করিবার ইচ্ছা=বিবমিষা
১৯.রমণ বা সঙ্গমের ইচ্ছা=রিরংসা
২০.আমার তুল্য=মাদৃশ

২১.ইহার তুল্য=ঈদৃশ
২২.ঋষির তুল্য=ঋষিকল্প
২৩.দেবতার তুল্য=দেবোপম
২৪.রন্ধনের যোগ্য=পাচ্য
২৫.জানিবার যোগ্য=জ্ঞাতব্য

২৬.প্রশংসার যোগ্য=প্রশংসার্হ
২৭.ঘ্রাণের যোগ্য=ঘ্রেয়
২৮.যাহা সহজে লঙ্ঘন করা যায় না=দুলঙ্ঘ্য
২৯.যাহা সহজে উত্তীর্ণ হওয়া যায় না=দুস্তর
৩০.যা বলা হয়েছে=বক্ষ্যমাণ

৩১.যা পূর্বে চিন্তা করা যায় নি=অচিন্তিতপূর্ব
৩২.যা পূর্বে কখনও আস্বাদিত হয় নাই=অনাস্বাদিতপূর্ব
৩৩.যা পূর্বে শোনা যায় নি=অশ্রুতপূর্ব
৩৪.হিরণ্য (স্বর্ণ) দ্বারা নির্মিত =হিরণ্ময়
৩৫.বাতাসে চরে যে=কপোত

৩৬.পূর্ব জন্মের কথা স্মরণ আছে যার=জাতিস্মর
৩৭.সরোবরে জন্মায় যাহা=সরোজ
৩৮.সর্বদা ইতস্তত ঘুরিয়া বেড়াইতেছে=সততসঞ্চরমান
৩৯.যা পুনঃ পুনঃ জ্বলিতেছে =জাজ্বল্যমান
৪০.সকলের জন্য প্রযোজ্য=সর্বজনীন

৪১.সকলের জন্য অনুষ্ঠিত =সর্বজনীন
৪২.প্রায় প্রভাত হয়েছে এমন=প্রভাতকল্পা
৪৩.রাত্রির মধ্যভাগ=মহানিশা
৪৪.স্মৃতিশাস্ত্রে পণ্ডিত যিনি=শাস্ত্রজ্ঞ
৪৫.স্মৃতি শাস্ত্র রচনা করেন যিনি=শাস্ত্রকার

৪৬.যিনি স্মৃতি শাস্ত্র জানেন=স্মার্ত
৪৭.শক্তির উপাসনা করে যে = শাক্ত
৪৮.এখনও শত্রু জন্মায় নাই যার=অজাতশত্রু
৪৯.এখনও গোঁফ-দাড়ি গজায় নাই যাহার=অজাতশ্মশ্রু
৫০.যে ব্যক্তি এক ঘর হতে অন্য ঘরে ভিক্ষা করে বেড়ায়=মাধুকর

৫১.অন্যদিকে মন নাই যার=অনন্যমনা
৫২.খেয়া পার করে যে =পাটনী
৫৩.নিজেকে বড় ভাবে যে=হামবড়া
৫৪.নিজেকে যে নিজেই সৃষ্টি করেছে=সয়ম্ভূ
৫৫.নিতান্ত দগ্ধ হয় যে সময়ে (গ্রীষ্মকাল)=নিদাঘ

৫৬.যা গতিশীল = জঙ্গম
৫৭.যে বিষয়ে কোন বিতর্ক নেই=অবিসংবাদী
৫৮.স্ত্রীর বশীভূত =স্ত্রৈণ
৫৯.অত্যন্ত তরল জল নিঃসরণ =অতিসার/অতীসার
৬০.অঙ্গীকৃত মাল তৈরির জন্য প্রদত্ত অগ্রিম অর্থ=দাদন

৬১.অতি উচ্চ ধ্বনি =মহানাদ
৬২.অতিশয় রমণীয়=সুরম্য
৬৩.অণুর ভাব=অণিমা
৬৪.অগ্র-পশ্চাৎ ক্রম অনুযায়ী =আনুপূর্বিক
৬৫.অবজ্ঞায় নাক উঁচু করে যে=উন্নাসিক

৬৬.অসির শব্দ=ঝঞ্জনা
৬৭.অন্ধকার রাত্রি =তামসী
৬৮.অশ্বের চালক=সাদি
৬৯.ঈষৎ নীলাভবিশিষ্ট=আনীল
৭০.ঈষৎ উষ্ণ =কবোষ্ণ

৭১.ঈষৎ পাংশু বর্ণ=কয়রা
৭২.আকস্মিক দুর্দৈব =উপদ্রব
৭৩.আঙুর ফল=দ্রাক্ষা
৭৪.আজীবন সধবা যে নারী=চিরায়ুষ্মতী
৭৫.উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া ধন=রিক্ত

৭৬. উটের বা হস্তীর শাবক=করভ
৭৭. ঋষির দ্বারা উক্ত(কথিত) =আর্য
৭৮. ঋজুর ভাব=আর্জব
৭৯. ঋতুর সম্বন্ধে=আর্তব
৮০. ঔষধের আনুষঙ্গিক সেব্য=অনুপান

৮১. কংসের শত্রু যিনি=কংসারি
৮২. কালো হলুদের মিশানো রঙ=কপিশ,কপিল
৮৩. ক্ষুধার অল্পতা=অগ্নিমান্দ্য
৮৪. কটিদেশ থেকে পদতল পর্যন্ত অংশ=অধঃকায়
৮৫. কৃষ্ণবর্ণ হরিণ=কালসার

৮৬. ক্রীড়নশীল তরঙ্গ =চলোর্মি
৮৭. কাচের তৈরি ঘর=শিশমহল
৮৮. কোন বিষয়ে যে শ্রদ্ধা হারিয়েছে= বীতশ্রদ্ধ
৮৯. কনুই থেকে বদ্ধ মুষ্টি পর্যন্ত পরিমাণ=রত্নি
৯০.কপালে আঁকা তিলক=রসকলি

৯১.কচি তৃণাবৃত ভূমি=শাদ্বল
৯২.ক্ষিতি, জল,তেজ বায়ু থেকে সঞ্জাত =চতুভৌতিক
৯৩.গৃহের প্রধান প্রবেশ পথ=দেহলি,দেউড়ি
৯৪.গরম জল=উষ্ণোদক
৯৫.গর্দভের বাসস্থান =খরশাল

৯৬. গুরুগৃহে বাস=অন্তেবাসী
৯৭. গ্রন্থাদির অধ্যায় =স্কন্দ
৯৮. গুরুর পত্নী =গুর্বী
৯৯. গাধার ডাক=রাসভ
১০০. ঘর্ষণ বা পেষণজাত গন্ধ=পরিমল

১০১. ঘোর অন্ধকার রাত্রি =তামসী,তমিস্রা
১০২. চোখের কোণ=অপাঙ্গ
১০৩. ছুতারের বৃত্তি=তক্ষণ
১০৪. চিত্তের তৃপ্তিদায়ক=দিলখোশ
১০৫.  জানায় যে=জ্ঞাপক

১০৬.ছিন্ন বস্ত্র=চীর
১০৭.জজের বৃত্তি=জজিয়াতী
১০৮.জলবহুল স্থান =অনুপ,জলা
১০৯.জানা উচিত =জ্ঞেয়
১১০.ত্বরার সঙ্গে বর্তমান=সত্বর

১১১. ত্বরায় গমন করে যে=তুরগ
১১২. তৃণাদির গুচ্ছ=স্তন্ব
১১৩. তরল অথচ গাঢ়=সান্দ্র
১১৪. তোপের ধ্বনি=গুড়ুম
১১৫. তস্করের কাজ=তাস্কর্য

১১৬.  তোমার মত=ত্বাদৃশ
১১৭. তার মত=তাদৃশ
১১৮. তনুর ভাব=তনিমা
১১৯. থেমে থেমে চলার যে ভঙ্গি=ঠমক
১২০. দাম উদরে যাহার=দামোদর

১২১. দেবতা থেকে উৎপন্ন বা দৈবজাত=আধিদৈবিক
১২২. দুরথীর যুদ্ধ =দ্বৈরথ

১২৩. দুই নদীর মধ্যবর্তী স্থান =দোয়াব
১২৪. দৈনন্দিন জীবনের লিখিত বিবরণ =রোজনামচা
১২৫. দুগ্ধবতী গাভী=পয়স্বিনী

১২৬. ধান্যাদি পরিমাপকারী =কয়াল
১২৭. নিবেদন করা হয় যা=নৈবেদ্য
১২৮. নির্ভুল মুনিবাক্য=আপ্তবাক্য
১২৯. নিকৃষ্ট ব্যক্তি =অজন
১৩০. নিচে জল আছে যার=অন্তঃসলিলা

১৩১. প্রস্থান করতে উদ্যত =চলিষ্ণু
১৩২. প্রদীপ শীর্ষের কালি=অঞ্জন
১৩৩.পেতে ইচ্ছা=ঈপ্সা
১৩৪. পেটের পীড়া ও তৎসহ জ্বর =জ্বরাতিসার
১৩৫. প্রতিবিধান করার ইচ্ছা=প্রতিবিধিৎসা

১৩৬. পাখির ডানা ঝাপটা =পাখসাট
১৩৭. পায়ে হেঁটে যে গমন করে না=পন্নগ
১৩৮.পায়ে হাঁটা =পদব্রজ
১৩৯. ফিকা কমলা রঙ=বাসন্তী
১৪০. পুরুষের কর্ণভূষণ =বীরবৌলি

১৪১.পূর্ণিমার চাঁদ = পূর্ণেন্দু (রাকা)
১৪২.প্রভাতের নবোদিত সূর্য=বালার্ক,বালসূর্য
১৪৩.বসন আলগা যার=অসংবৃত
১৪৪.বীজ বপনের উপযুক্ত সময়=জো
১৪৫.বেলা ভূমিকে অতিক্রম =উদ্বেল
১৪৬.বিশেষ ভাবে দর্শন =বীক্ষণ
১৪৭.ভোরে গাওয়ার উপযুক্ত গান=ভোরাই
১৪৮.মরনের জন্য অনশন =প্রায়োপবেশন
১৪৯.মেঘের ধ্বনি=জীমূতমন্দ্র
১৫০.মন্থন করা হয়েছে=মথিত
১৫১.মাথায় টাক=খলতি
১৫২.যার কিছু নেই=আকিঞ্চন
১৫৩.যাহার বসন (পোশাক) মাটির রঙের=গৈরিকবসনা
১৫৪.যার পঞ্জরাস্থি ক্ষীণ =উনপাঁজুরে
১৫৫.যার দিক থেকে চক্ষু ফেরানো যায় না=অসেচনক
১৫৬.বলা হতে যাচ্ছে বা হবে=বক্ষ্যমাণ
১৫৭.যার কীর্তি শ্রবণে পূণ্য জন্মে=পুণ্যশ্লোক
১৫৮.যাহা উচ্চারণ করিতে কষ্ট হয়=দুরুচ্চার্য
১৫৯.যে স্ত্রীর বশীভূত =স্ত্রৈণ
১৬০.যা শুনলে দুঃখ দূর হয়=দুঃশ্রব
১৬১.যা গমন করে না=নগ
১৬২.যার স্পৃহা দূর হয়েছে=বীতস্পৃহ
১৬৩.লয় প্রাপ্ত হয়েছে=লীন
১৬৪.শত্রুকে পীড়া দেয় যে=পরন্তপ
১৬৫.শক্তির উপাসনা করে যে=শাক্ত
১৬৬.শাল গাছের ন্যায় দীর্ঘাকার=শালপ্রাংশু
১৬৭.ষাঁড়ের চেহারা তুল্য =ষণ্ডামার্কা
১৬৮.সুদে টাকা খাটানো=তেজারতি
১৬৯.স্বর্গের গঙ্গা=মন্দাকিনী
১৭০.হাতি বাঁধার রজ্জু=আন্দু
১৭১.হস্তী রাখার স্থান =বারী,পিলখানা
১৭২.হস্তী তাড়নের নিমিত্ত ব্যবহৃত লৌহদণ্ড =অঙ্কুশ
১৭৩.হস্তীর চারণভূমি=প্রচার

১৭৪. হত্যা করে যে=হন্তারক
১৭৫. অব্যক্ত মধুর ধ্বনি=কলতান
১৭৬. যার বাসস্থান নেই=অনিকেতন
১৭৭. আয়ুর পক্ষে হিতকর=আয়ুষ্য
১৭৮. ইতয়ার পুত্র=ঐতরেয়
১৭৯. কর্মে অতিশয় তৎপর =করিৎকর্মা
১৮০.কুরুর পুত্র=কৌরব
১৮১.কুন্তীর পুত্র=কৌন্তের
১৮২.চৌত্রিশ অক্ষরে স্তব=চৌতিশা
১৮৩.জয়লাভ করতে অভ্যস্ত যে=জিষ্ণু
১৮৪.জয় করার যোগ্য=জেতব্য
১৮৫.তমঃদূর করে যে=তমোনাশ
১৮৬.দান করে যে কেড়ে নেয়=দত্তাপহারী
১৮৭.দান করার ইচ্ছা=দিৎসা
১৮৮.ন্যায় শাস্ত্রে পণ্ডিত যিনি=নৈয়ায়িক
১৮৯.পিতার ভগিনী=পিতৃষসা
১৯০.পুণ্ডরীক্ষের ন্যায় অক্ষি যার=পুণ্ডরীকাক্ষ
১৯১.বাক্য ও মনের অগোচর=অবাঙ্মনসগোচর
১৯২.ভ্রাতাদের মধ্যে সদ্ভাব =সৌভ্রাত্র
১৯৩.মৃত্যু কামনায় উপবাস=প্রায়োপবেশন
১৯৪.যে আতপ থেকে ত্রাণ করে=আতপত্র
১৯৫.যে সুপথ থেকে ভিন্ন পথে গেছে=উন্মার্গগামী
১৯৬.যে উপরে উঠেছে =আরূঢ়
১৯৭.যে পার হতে ইচ্ছুক=তিতীর্যু
১৯৮.যে অট্টালিকা দেখতে সুন্দর=হর্ম্য
১৯৯.যে নদীর জল পূণ্যদায়ক=পূণ্যতোয়া
২০০.যে অস্ত্র একশত জনকে বধ করতে পারে=শতঘ্নী
২০১.যে বহু বুলি বলে=হরবোলা
২০২.যা বিচারের দ্বারা ঠিক করা যায় না=অপ্রতর্ক্য
২০৩.যা মিলিয়ে যাচ্ছে=অপসৃয়মান
২০৪.যা পূর্বে কথিত বা উল্লিখিত =প্রাগুক্ত
২০৫.যা শল্য ব্যথা দূর করে=বিশল্যকরণী
২০৬.যার উদর বক্রগতি সম্পন্ন=কাকোদর
২০৭.শুনতে ইচ্ছুক=শুশ্রূষু
২০৮.হস্তীর চিৎকার =বৃংহিত
২০৯.রঘুর পুত্র=রাঘব

২১০.পদ্মের ডাঁটা=মৃণাল
২১১.হাতির পিঠে আরোহী বসার স্থান =হাওদা
২১২.যা সহজে অপনীত হবার নয়=দুরপনেয়
২১৩.সন্তানের মত যত্নে=অপত্যনির্বিশেষে
২১৪.যে রমণীর হাসি পবিত্র=শুচিস্মিতা
২১৫.যে রমণীর হাসি সুন্দর=সুহাসিনী

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Language
error: Content is protected !!