তারিখ (বাংলায়) লেখার নিয়ম

ড. মোহাম্মদ আমীন

স্কুলজীবনে শিক্ষক ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২৬শে মার্চ, ২রা জুন, ১লা মে, ৩রা এপ্রিল, ৪ঠা মে, ৮ই ডিসেম্বর প্রভৃতি শিখিয়েছেন। এখন তারিখ লেখার সময়

পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স লি.

সংখ্যার পর ‘শে রা লা ঠা ই’ চিহ্ন-সমূহ আর দেখা যায় না। লেখা হয় যথাক্রমে ২৬ মার্চ, ২ জুন, ১ মে, ৩ এপ্রিল, ৪ মে, ৮ ডিসেম্বর প্রভৃতি।

কেন এমন লেখা হয়? একজন বললেন, “শে রা লা ঠা ই ধ্বনিগুলো না-দিলেও পড়ার সময় তারিখের সঙ্গে ওই বর্ণগুলো পড়া হয়ে যায়। তাই এসব লেখা অপ্রয়োজনীয়। উচ্চারণ প্রয়োজনীয় হলে উচ্চারণ-নির্দেশক চিহ্ন অপ্রয়োজনীয় হবে কেন? এই প্রশ্নের উত্তরে তিনি বললেন, “বাংলা একাডেমি এসব চিহ্ন ছাড়াই তারিখ লেখার নির্দেশনা প্রদান করেছে।”
আসলে কী তাই? দেখা যাক, বাংলা একাডেমি কী বলে? ‘বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান’ হচ্ছে বাংলা একাডেমি প্রকাশিত সর্বশেষ অভিধান। যা ২০১৬ খ্রিষ্টাব্দে প্রথম প্রকাশিত হয়। ওই অভিধানের পরিশিষ্টে (পরিশিষ্ট গ) বাংলা তারিখ ও সময় কীভাবে লেখা হবে তা বর্ণিত হয়েছে। বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধানে —
১ তারিখ লেখা হয়েছে : ১লা, উচ্চারণ /পয়্‌লা/ [যেমন : ১লা জানুয়ারি।]
২ তারিখ লেখা হয়েছে : ২রা, উচ্চারণ /দোশ্‌রা/ [ যেমন : ২রা ফেব্রুয়ারি।]
৩ তারিখ লেখা হয়েছে : ৩রা, উচ্চারণ /তেশ্‌রা/;[ যেমন : ৩রা মার্চ।]
৪ তারিখ লেখা হয়েছে : ৪ঠা, ‍উচ্চারণ /চোউ্‌ঠা/; [ যেমন : ৪ঠা এপ্রিল]
৫ তারিখ লেখা হয়েছে : ৫ই, উচ্চারণ /পাঁচোই/; [ যেমন : ৫ই মে]
৬ তারিখ লেখা হয়েছে : ৬ই, উচ্চারণ ছওই; [ যেমন : ৬ই জুন]।
১৯ তারিখ লেখা হয়েছে : ১৯শে, উচ্চারণ /উনিশে/; [ যেমন : ১৯শে জুলাই]।
২১ তারিখ লেখা হয়েছে : ২১শে, উচ্চারণ /একুশে/;[ যেমন: ২১শে ফেব্রুয়ারি]।

 

অতএব, বাংলা একাডেমি প্রমিত বানান রীতি অনুসরণ করলে তারিখের সংখ্যার পর নির্দেশনা অনুযায়ী লা রা ঠা ই শে প্রভৃতি বর্ণ বাদ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।
বাংলা একাডেমি প্রমিত বানান রীতি এবং বাংলা একাডেমি আধুনিক বাংলা অভিধান অনুযায়ী অ্যাক বৈশাখ, অ্যাগারো  জ্যৈষ্ঠ, শোলো ডিসেম্বর, পোঁচিশ বৈশাখ প্রভৃতি উচ্চারণ অশুদ্ধ। শুদ্ধ ও মান্য রীতি হলো যথাক্রমে পয়লা বৈশাখ, অ্যাগারোই জ্যৈষ্ঠ, শোলোই ডিসেম্বর, পোঁচিশে বৈশাখ প্রভৃতি। অতএব, ফেব্রুয়ারি মাসের ২১ তারিখকে একুশে ফেব্রুয়ারি বা ২১শে ফেব্রুয়ারি লেখা পুরোপুরি শুদ্ধ, সিদ্ধ ও প্রমিত।
———————————————————————————-

All Link

বিসিএস প্রিলি থেকে ভাইভা কৃতকার্য কৌশল

ড. মোহাম্মদ আমীনের লেখা বইয়ের তালিকা

বাংলা সাহিত্যবিষয়ক লিংক

বাংলাদেশ ও বাংলাদেশবিষয়ক সকল গুরুত্বপূর্ণ সাধারণজ্ঞান লিংক

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/১

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন/২

বাংলা বানান কোথায় কী লিখবেন এবং কেন লিখবেন /৩

কীভাবে হলো দেশের নাম

ইউরোপ মহাদেশ : ইতিহাস ও নামকরণ লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/১

দৈনন্দিন বিজ্ঞান লিংক

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/২

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৩

শুদ্ধ বানান চর্চা লিংক/৪

কীভাবে হলো দেশের নাম

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/১

সাধারণ জ্ঞান সমগ্র/২

বাংলাদেশের তারিখ

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Language
error: Content is protected !!