Hobson’s choice (হবসন্‌স চয়েস): হবসনের পছন্দ: সবেধন নীলমনি একটাই কেবল

ড. মোহাম্মদ আমীন
 
 
Hobson’s choice (হবসনস চয়েস) একটি ইংলিশ বাগ্‌ধারা। ব্রিটিশ নাগরিক থমাস হবসনের বিশেষ আচরণ থেকে  তার নামে বাগ্‌ধারাটির উদ্ভব। প্রসঙ্গত, থমাস হবসন ১৫৪৪ খ্রিষ্টাব্দের ৪ঠা জানুয়ারি ক্যামব্রিজে জন্মগ্রহণ করেন এবং  ১৬৩১ খ্রিষ্টাব্দের  ১লা জানুয়ারি ক্যামব্রিজে মারা যান (বিস্তারিত নিচের সংযোগে)। নুগ্রহপূর্বক পুরো না-পড়ে বিরূপ মন্তব্য করবেন না।
 
Hobson’s choice কথাটির আক্ষরিক অর্থ হবসনের পছন্দ। আলংকারিক ও প্রায়োগিক অর্থ সবেধন নীলমণি মাত্র একটা থেকে পছন্দের
ড. মোহাম্মদ আমীন এবং তাঁর মা
বিষয়টি বেছে নেওয়া।  জিনিস আছে কেবল একটি, পছন্দ দুটি গ্রহণ বা প্রত্যাখ্যান। এর বাংলা হতে পারে জোড়কলমে পখ্যান (বিস্তারিত নিচের সংযোগে)। একটি মাত্র বিষয় বা বস্তু থেকে পছন্দ করার বাধ্যবাধকতাকে হবসনস চয়েস বা হবসনের পছন্দ বলা হয়। সহজ কথায় একটি কেবল জিনিস ইচ্ছে হলে নাও, অন্যথ্যায় খালি হাতে যাও ফিরে যাও।
Where to elect there is but one,
‘Tis Hobson’s choice— take that, or none.
 
যেখানে  কেবল একটা বিষয় উপস্থাপন করা হয় সেখানে  সাধারণভাবে মনে করা হয় নিজের পছন্দ প্রকাশের কোনো বিকল্প থাকে না। অতএব, পছন্দের বিষয়টি কীভাবে আসে? আসলে, একটি বিষয় উপস্থাপন করা হলেও আর পছন্দের আর একটি বিকল্প এসে যায় এবং সেটি হচ্ছে প্রত্যাখ্যান। কাউকে একটি জিনিস দিয়ে যদি বলা হয় হয়, “এই একটি থেকে পছন্দ করে নিন।” এক্ষেত্রে একটা জিনিস দেওয়া হলেও  স্বয়ংক্রিয়ভাবে দুটি বিষয় হয়ে যায়। একটি হচ্ছে পছন্দ এবং দ্বিতীয়টি  প্রত্যাখ্যান।  সহজ কথায়, পছন্দ বা প্রত্যাখ্যান। অবশ্য বিকল্প বিষয় থাকলেও একই ঘটনা ঘটে।  পছন্দ ও প্রত্যাখ্যান শব্দ দুটিকে জোড়কলম প্রক্রিয়ায় বলা যায় পখ্যান=পছন্দ+প্রত্যাখ্যান। যেমন: যেমন: Camera+ Recorder= Camcorder, ধোঁয়া+কুয়াশা= ধোঁয়াশা, হাঁস+সজারু= হাঁসজারু, বক+কচ্ছপ = বকচ্ছপ,  ঘুস+উৎসাহ= ঘুৎসাহ, ঝট+তড়িৎ= ঝটিৎ, ইউরোপ+এশিয়া= ইউরেশিয়া প্রভৃতি।
 
বাগ্‌ধারাটির উদ্ভাবক থমাস হবসন ছিলেন যুক্তরাজ্যের ক্যামব্রিজে অবস্থিত একটি বিখ্যাত লিভারি আস্তাবলের (livery stable) মালিক। লিভারি আস্তাবল হচ্ছে এমন একটি আস্তাবল যেখানে  কেবল সাময়িকভাবে ভাড়া দেওয়ার জন্য ঘোড়া রাখা হতো। ঘোড়াসমূহের মালিক  দৈনিক, সাপ্তাহিক, মাসিক বা যে-কোনো স্বল্প সময়ের জন্য অর্থের বিনিময়ে গ্রাহকদের ঘোড়া ভাড়া দিতেন। লিভারি আস্তাবল কথাটির উদ্ভব দক্ষিণ আমেরিকায়। হবসনের আস্তাবলে চল্লিশটি অতি উন্নত প্রজাতির ঘোড়া ছিল। এটি ছিল তৎকালীন ক্যামব্রিজের সবচেয়ে নামি, দামি এবং অভিজাত লিভার আস্তাবল। হবসন তাঁর আস্তাবলের জায়গাটি ক্যামব্রিজ ইউনিভার্সিটিকে দান করে যান। বর্তমানে তার আস্তাবলের জায়গায় St Catharine’s College, Cambridge অবস্থিত।
 
কোনো গ্রাহক ঘোড়া ভাড়া করার জন্য হবসনের লিভারি আস্তাবলে এলে তিনি দরজার কাছে অবস্থিত ঘোড়াটি দেখিয়ে বলতেন, এটিই তার আস্তাবলে রক্ষিত সবচেয়ে ভালো ঘোড়া। আপনাকে এটিই পছন্দ করতে হবে। পছন্দ হলে নিতে পারেন। নইলে চলে যেতে পারেন।”  থমাস হবসনের এই আচরণ থেকে ইংরেজি  হবসনস চয়েস (Hobson’s choice) বাগ্‌ধারাটির (phrase) উদ্ভব।
 
 
প্রসঙ্গত Hobson’s choice নামের একটি বিখ্যাত চলচ্চিত্র রয়েছে। হ্যারল্ড ব্রাইহাউজ হবসনের ঘটনাকে উদাহরণে এনে Hobson’s choice নামের একটি প্রণয়ধর্মী রম্য নাটক রচনা করেন। ১৯৫৪ খ্রিষ্টাব্দে এই নাটক অবলম্বনে হবসন্‌স চয়েস নামের একটি চলচ্চিত্র মুক্তি পায়।  এর  পরিচালক ছিলেন ডেভিড লিন।  নাম ভূমিকায় অভিনয় করেন চার্লস লটন। ছবিটি চতুর্থ বার্লিন চলচ্চিত্র উৎসবে স্বর্ণ ভল্লুক এবং অষ্টম বাফটা পুরস্কার অনুষ্ঠানে  শ্রেষ্ঠ ব্রিটিশ চলচ্চিত্রের পুরস্কার লাভ করে।
 
অক্সফোর্ড ইংলিশ ডিকশনারি (Oxford English Dictionary)  মতে, ১৬৬০ খ্রিষ্টাব্দে স্যামুয়েল ফিসার (Samuel Fisher ) তাঁর লেখা The rustick’s alarm to the Rabbies গ্রন্থে সর্বপ্রথম Hobson’s choice বাগ্‌ভঙ্গিটি বাগ্‌ধারা হিসেবে ব্যবহার করেন।  এরপর এটি ক্রমশ জনপ্রিয়তা লাভ করে।  থমাস হবসন ১৫৪৪ খ্রিষ্টাব্দের ৪ঠা জানুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন এবং  ১৬৩১ খ্রিষ্টাব্দের  ১লা জানুয়ারি মারা যান।
 
এই পোস্টের সংযোগ
https://draminbd.com/hobsons-choice-হবসন্‌স-চয়েস-হবসনের-প/
 
 
error: Content is protected !!